চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তিন নির্মাতার পরিচালনায় এক সিনেমা, ঈদুল আযহায় মুক্তি

ঈদুল আযহাকে টার্গেট করে একটি সিনেমা নির্মাণ করতে যাচ্ছেন দীপঙ্কর দীপন, অনন্য মামুন ও সৈকত নাসির…

করোনাকালেই নির্মিত হতে যাচ্ছে নতুন সিনেমা! তারচেয়েও চমকের ব্যাপার হচ্ছে, সিনেমাটি নির্মাণ করতে যাচ্ছেন তিন পরিচালক মিলে! তারা কারা? সেটিও একটি চমকই বটে!

সময়ের অন্যতম তিন মেধাবী নির্মাতা অনন্য মামুন, সৈকত নাসির ও দীপঙ্কর দীপন। তিন নির্মাতাই চ্যানেল আই অনলাইনকে সিনেমা নির্মাণের বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

তারা জানিয়েছেন, একটি সিনেমা তারা তারা তিনজন মিলে বানাবেন। প্রাথমিকভাবে সিনেমাটির নাম ‘ত্রিভূজ’। সবকিছু ঠিক থাকলে জুনের প্রথম সপ্তাহেই এ সিনেমার শুটিং শুরু করবেন তারা। সিনেমাটি প্রযোজনা করছে সেলেব্রেটি প্রোডাকশন।

বিজ্ঞাপন

করোনার মধ্যেই শুটিং করার বিষয়টি নিয়ে জানালেন অনন্য মামুন। তার ভাষ্য, শুটিং করা যাবেনা এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। বলেন, তিনটি পরিবারের গল্প তিনজনে তিনভাবে বানাবো। বাণিজ্যিক সিনেমা যেভাবে নির্মিত হয় সেভাবেই শুটিং করবো। ঘরে বসে শুটিংয়ের মতো নয়। নিজেদের সুরক্ষা আগে নিশ্চিত হয়ে, দূরত্ব বজায় রেখে পিপিই ব্যবহার করে যেভাবে কাজ করা হয় সেভাবেই করবো।

তিনি বলেন, ইচ্ছে আছে ৬ জুন শুটিংয়ে যেতে পারবো। আরও দু‘তিনদিন পর শিল্পীদের চূড়ান্ত করে নাম প্রকাশ করা হবে।

‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত পরিচালক দীপঙ্কর দীপন বলেন, তিনজন মিলে যে সিনেমা নির্মাণ করতে যাচ্ছি সেখানে করোনার সময়ের মানুষের জীবন নিয়ে নির্মাণ হবে। কিন্তু মোবাইলে শুটিং, একফ্রেমে একজনকে দেখা যাওয়া এমনটা নয়। গল্পের কিছুটা অংশ এ সময়কার, যেটা সঠিকভাবে সিনেমায় ফুটে উঠবে। ক্যামেরাম্যান, টেকনিক্যাল সাপোর্ট সবকিছু থাকবে।

তিনি বলেন, গল্পের জন্য শুটিং প্রক্রিয়া ভিন্ন হবে। তাই আমাদের এ সিনেমার জন্য করোনাকালেও শুটিং করা সম্ভব। তবে গল্পে যদি বস্তির মধ্যে মারামারি ডিমান্ড করে সেই দৃশ্য শুটিং করা সম্ভব নয় বলে জানান দীপঙ্কর দীপন। তিনি বলেন, শুটিংয়ের যাবতীয় আয়োজন, ইউনিট ম্যানেজমেন্ট থেকে শিল্পীদের নাম বিষয় সবকিছু অনন্য মামুন করছেন।

এদিকে ‘দেশা দ্য লিডার’ নির্মাণ করে আলোচিত হওয়া নির্মাতা সৈকত নাসির বলেন, আমরা তিনজন মিলেই চিত্রনাট্য বোঝাাপড়া করে নিয়েছি, কীভাবে শুটে যাবো তাও ঠিক করেছি। মহামারীর মধ্যেও যতটুকু কাজ করা সম্ভব, ততটুকু করবো। গল্পে মহামারীর সময়ের কিছু কিছু জিনিস থাকবে। তবে পুরোপুরি না।

তিনি বলেন, তিনমাসের বেশি সময় করোনায় বসে ছিলাম। এভাবে আর সম্ভব নয়। হলিউডের ফিল্মমেকাররা একটা সিনেমা করে হয়তো একবছর বসে থাকতে পারেন কিন্তু আমরা বাংলাদেশি নির্মাতাদের পক্ষে সম্ভব নয়। না খেয়ে মরার চেয়ে ফাইট করে যতদিন টিকে থাকতে পারি চলবো। তবে সর্বোচ্চ সতর্কতা নিয়ে কাজ করবো।

পুরোপুরিভাবে নাম চূড়ান্ত না হওয়া এ সিনেমার গল্প অনন্য মামুনের। চিত্রনাট্য করছেন অনন্য মামুনসহ ইশতিয়াক আহমেদ এবং পাপ্পু রাজ। ডিওপি থাকবেন রাজু রাজ। নির্মাতাদের মাধ্যমে জানা গেছে, একটি অনলাইন প্লাটফর্মে ঈদুল আযহাতে সিনেমাটি মুক্তি দেয়া হবে।