চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তরুণীদের জন্য জাপান যাওয়ার সুযোগ

বয়স হতে হবে ২০ থেকে ২৯ বছর

জাপানী শিশু, বৃদ্ধ বা অসুস্থ ব্যক্তিদের দেখাশোনা করতে বাংলাদেশি তরুণীদের কেয়ারগিভার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।  

‘কেয়ারগিভার’ শব্দটির বাংলা অর্থ শুশ্রূষাকারী বা সেবাদানকারী। উন্নত বিশ্বের দেশগুলোতে কেয়ারগিভারদের জন্য রয়েছে বিশেষ মর্যাদা।

বিজ্ঞাপন

জাপানে কেয়ারগিভার হিসেবে কাজ করতে ইচ্ছুক একজন তরুণীর থাকতে হবে উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা। জাপানী ভাষা জানা প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। জাপানী ভাষা (Leve-14) শেখার মানসিক প্রস্তুতি থাকতে হবে। আর এই পেশার জন্য শুধু তরুণীরাই নির্বাচিত হবেন।

কেয়ারগিভার’ বা ‘শুশ্রূষাকারী’ হিসেবে জাপান গমনেচ্ছু প্রার্থীদের জন্য কেয়ারগিভার কোর্স পরিচালনা করে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন। সে লক্ষ্যে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর অধীনে কেরাণীগঞ্জ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে (টিটিসি) কেয়ারগিভার কোর্সে ভর্তি হওয়ার জন্য বাংলাদেশের তরুণীদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহবান করা হয়েছে। ২০১৯ সালের নভেম্বর মাস থেকে শুরু হওয়া এ কোর্সের মেয়াদ হবে ৪ (চার) মাস।

ভর্তির শর্ত:
১. ০১/০৮/২০১৯ ইং তারিখে বয়স ২০ হতে ২৯ বছর।
২. শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি। স্মার্ট ও উদ্যমী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এসএসসি পর্যন্ত শিথিলযোগ্য।
৩. জাপানী ভাষা জানা প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।
৪. জাপানী ভাষা (Leve-14) শেখার মানসিক প্রস্তুতি থাকতে হবে।
৫. প্রার্থীদের বিনয়ী, স্মার্ট, ধৈর্যশীল এবং নতুন বিষয়াদি শিখতে আগ্রহী হতে হবে।
৬. শিশু এবং বয়স্ক ও শয্যাশায়ী বৃদ্ধদের সেবাদানের মানসিকতা সম্পন্ন এবং সর্বোপরী মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন হতে হবে।
৭. বিদেশে কাজ করতে আগ্রহী হতে হবে।
৮. শারিরীক যোগ্যতাঃ- উচ্চতা কমপক্ষে ৪ ফুট ৬ ইঞ্চি এবং ওজন সর্বনিম্ন ৪০ কেজি।

বিজ্ঞাপন

এসব শর্ত সাপেক্ষে আগ্রহী প্রার্থীদেও বায়োডাটার স্ক্যানকপি কেরাণীগঞ্জ টিটিসি, এর
([email protected]), ([email protected]),
([email protected]) ইং তারিখের মধ্যে পাঠাতে হবে।

ই-মেইলে সাবজেক্ট লাইনে কথাটি লিখতে হবে। আবেদনের সাথে অন্য কোন কাগজপত্র সংযুক্ত করার দরকার নেই। আবেদনপত্র যাচাই করে প্রাথমিকভাবে যোগ্য প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেয়া হবে।

সাক্ষাৎকারের সময় যেসব কাগজপত্র আনতে হবে:
১. অনলাইনে আবেদনপত্রের কপি।
২. এইচ.এস.সি./এস.স.সি. মূল সনদপত্র ও ১ (এক) সেট সত্যায়িত ফটোকপি।
৩. সদ্য তোলা ২ (দুই) কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
৪. জাপানি ভাষায় দক্ষতা সংক্রান্ত মূল সনদপত্রসহ ১ (এক) সেট ফটোকপি (যদি থাকে)।
৫. মূল জাতীয় পরিচয়পত্রসহ (National ID) অথবা জন্মসনদসহ (Birth Certificate) ১ সেট ফটোকপি।

প্রশিক্ষণার্থীদের থাকার ব্যবস্থা টিটিসিতে করা হবে। তবে খাওয়ার খরচ নিজেদের বহন করতে হবে।
আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকার কেরাণীগঞ্জ টিটিসিতে আগস্টের ১ তারিখে সকাল ১০টায় গ্রহণ করা হবে এবং বিকাল ৩টায় ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

আবেদনকারীদের কাছ থেকে ভর্তি ফি বাবদ অফেরত যোগ্য এককালীন ৫ হাজার টাকা নেওয়া হবে।

Bellow Post-Green View