চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডেল্টা সংক্রমণেও ৯২ শতাংশ সুরক্ষা দেয় ভ্যাকসিন

দুই কোটির বেশি মানুষের ওপর ফ্রান্সের করা এক বিস্তৃত গবেষণায় উঠে এসেছে, করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণেও তীব্র অসুস্থতা থেকে রক্ষা করতে খুবই কার্যকর ভ্যাকসিন।

সোমবার প্রকাশিত ওই গবেষণার মূল লক্ষ্য ছিলো করোনায় সংক্রমণ নিয়ে নয়, বরং তীব্র অসুস্থতা ও মৃত্যু থেকে কিভাবে মানুষকে রক্ষা করা যায় সেটা। ৫০ বছরের বেশি বয়সী দুই কোটিরও বেশি (২২ মিলিয়ন) মানুষের উপর গবেষণা চালিয়ে দেখা গেছে, যারা ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছে তাদের ৯০ শতাংশকে হাসপাতালে ভর্তি হতে বা মৃত্যুবরণ করতে হয়নি।

এই ফলাফলে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইসরায়েলের পর্যবেক্ষণ নিশ্চিত করা হয়েছে। গবেষকরা বলছেন, এটিই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বিস্তৃত গবেষণা।

২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে গবেষণার তথ্য সংগ্রহ শুরু হয়। সেই সময়ে ফ্রান্স তাদের ভ্যাকসিন ডোজের প্রচারণা শুরু করে। গবেষকরা ১১ মিলিয়ন ভ্যাকসিন গ্রহীতার সঙ্গে ১১ মিলিয়ন ভ্যাকসিন না নেওয়াদের তুলনা করেন।

তারা ভ্যাকসিন গ্রহণকারী ব্যক্তির সাথে একই অঞ্চলের, একই বয়স এবং লিঙ্গের ভ্যাকসিন না নেওয়া ব্যক্তির জোড়া তৈরি করে। পরে ভ্যাকসিন নেওয়া ব্যক্তির দ্বিতীয় ডোজের তারিখ থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত তাদের পর্যবেক্ষণ করে।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার ১৪ দিন পরেই ভ্যাকসিন গ্রহীতার করোনায় তীব্র অসুস্থতার ঝুঁকি ৯০ শতাংশ কমে যায় বলে জানানো হয়েছে ফ্রান্স সরকারের সঙ্গে কাজ করা স্বাধীন ওষুধ নিরাপত্তা গবেষক দল ইপিআই-ফারির ওই গবেষণায়।

ভ্যাকসিন প্রদান ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধেও একইভাবে কার্যকর। এটা ৭৫ বছরের বেশি বয়সীদের ৮৪ শতাংশ সুরক্ষা দেয় এবং ৫০-৭৫ বয়সীদের ৯২ শতাংশ সুরক্ষা দিচ্ছে।

তবে এই ফলাফল শুধু একমাসের তথ্যের ভিত্তিতে করা কারণ ফ্রান্সে শুধু জুনেই এই ভ্যারিয়েন্ট বেশি প্রভাব বিস্তার করে।

ইপিআই ফারির প্রধান মহামারী বিশেষজ্ঞ মাহমোদ জুরেইখ বলেন, আগস্ট এবং সেপ্টেম্বর থেকে ফলাফল অন্তর্ভুক্ত করার জন্য গবেষণাটি অনুসরণ করা উচিত।

এই গবেষণায় ফাইজার/বায়োএনটেক, মডার্না এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন অন্তুর্ভূক্ত ছিলো। জনসনের ভ্যাকসিন তাতে ছিলো না, কারণ সেটা পরে অনুমোদন পেয়েছে এবং ফ্রান্সে কম ব্যবহৃত হয়েছে।

ফলাফল বলছে, এই গবেষণা চলাকালে পাঁচ মাস পর্যন্ত গুরুতর করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনের সুরক্ষা হ্রাস পায়নি।

বিজ্ঞাপন