চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডেলটা প্ল্যানের দ্রুত বাস্তবায়ন চান পরিবেশবিদরা

জলাভূমির সঠিক ব্যবস্থাপনা ছাড়া টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। জলাভূমি ও জীবন জীবিকা রক্ষায় আড়িয়াল বিলের ভূমিকা নিয়ে ভার্চুয়াল আলোচনায় ডেলটা প্ল্যানের দ্রুত বাস্তবায়ন চেয়েছেন পরিবেশবিদরা।

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের ১শ’৩৬ বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে থাকা ঐতিহ্যবাহী জলাভূমি আড়িয়াল বিল। এক সময়ের জীববৈচিত্রে ভরা আড়িয়াল বিল এখন দখল-দুষণে মৃতপ্রায়। বাস্তুচ্যুত হয়েছে বিলের উপর নির্ভরশীল হাজারো মানুষের জীবন ও জীবিকা। আড়িয়াল বিলসহ জলবায়ু পরিবর্তন রোধে জলভূমি ভূমিকা, জলাভূমির অতিত-বর্তমান, পুনরুদ্ধার, সংরক্ষণ ও রক্ষণাবেক্ষণ নিয়ে আলোচনা করেন বক্তরা।

বিজ্ঞাপন

আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু পানি সম্পদ কাজে লাগাতে সরকারের মন্ত্রণালয়গুলোর মধ্যে সমন্বয়ের অভাবের বিষয়টি তুলে ধরেন। পানি সম্পদ রক্ষায় ও কাজে লাগাতে ডেল্টা প্ল্যান দ্রুত বাস্তবায়নের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

বিজ্ঞাপন

মুকিত মজুমদার বাবু বলেন, জলাভূমি ব্যবস্থাপনায় সরকার পিছিয়ে আছে। এ নিয়ে আইনের প্রয়োগে ঢিলেমির অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া হাওড়গুলোকে জেলা প্রসাশনের কাছ থেকে বন বিভাগের কাছে দেওয়ার দাবি করেন প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান।

বিজ্ঞাপন

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে সহযোগী অধ্যাপক ড. রঞ্জন রায় বলেন, জলাভূমির সঠিক ব্যবস্থাপনা ছাড়া টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়। জলাশয়কে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলার প্রাকৃতিক সমাধান হিসেবে দেখছেন এই বিশেষজ্ঞ।

আড়িয়াল বিলের গবেষক আবদুর রশীদ খান মনে করেন, পদ্মা নদীর পানির প্রবাহ আড়িয়াল বিলে প্রবাহিত করতে না পারলে এ বিলকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়।

আরন্যক ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ফরিদউদ্দিন আহমেদ আড়িয়াল বিল ও এর জীববৈচিত্র নিয়ে বৈজ্ঞানিক গবেষণার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. খন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন বলেন, উচ্ছেদের পর মনিটরিংয়ের অভাবে আবারো দখল হয়ে যাচ্ছে জলাশয় ও নদীর পাড়। জলাভূমির অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের দখলে নেওয়ার অভিযোগ করেন তিনি।

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ফাইনান্স বিভাগের সহাকারী অধ্যাপক আবু জাফর মুকুলের সঞ্চালনায় আগামীর বাংলাদেশ এর ভার্চুয়াল আলোচনায় বিশেষজ্ঞরা জলাভূমি রক্ষায় স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করে সমন্বিত উদ্যোগ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।