চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ডেঙ্গু নির্ণয়ে রক্ত পরীক্ষায় নতুন সংকট

দিন যত গড়াচ্ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ যেন বাড়ছেই। প্রতিদিনই নতুন নতুন রোগী ভিড় করছেন হাসপাতালগুলোতে। ডেঙ্গু শনাক্তে রক্তের যে তিনটি পরীক্ষা করাতে হয় এর মধ্যে এনএস-১ অন্যতম। কিন্তু ডেঙ্গু নির্ণয়ে রক্ত পরীক্ষার অন্যতম অনুসঙ্গ উপাদান কিট বা রিএজেন্ট সংকটে পড়েছে রাজধানীর বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো।

চ্যানেল আইয়ের প্রতিবেদনে জানা যায়, কোথাও কোথাও সীমিত আকারে সেবা চালু থাকলেও রিএজেন্ট-এর অভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা বন্ধ রয়েছে অনেক প্রতিষ্ঠানের।

বিজ্ঞাপন

দেশের মানুষ যে হারে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে, তাতে এ সংকট অস্বাভাবিক নয়। তবে সংকট দীর্ঘ মেয়াদে চলতে থাকলে মানুষের ভোগান্তি বাড়বে, সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করবে। এমন শঙ্কার পরিপ্রেক্ষিতে শিগগিরই সংকট কেটে যাবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

ডেঙ্গু জ্বরের ভয়াবহতায় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে যে এই পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই, তা ইতোমধ্যে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। এর বেশিরভাগই জেলা বা উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতাল। এসব হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষার ব্যবস্থা না থাকাকে আমরা জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকির বিষয় বলেই মনে করি।

তবে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর যে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করছে না, তা নয়। ডেঙ্গু পরিস্থিতি মোকাবিলায় তারা সাধ্যমতো চেষ্টার কথা জানিয়েছে। দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও সংকট মোকাবিলায় কাজ করে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দু’একদিনের মধ্যেই কয়েক লাখ কিট আনা হচ্ছে। এর মাধ্যমে ডেঙ্গু নির্ণয়ে রক্ত পরীক্ষার সংকট কেটে যাবে বলেই আমরা মনে করি।

একইসঙ্গে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনসহ দেশব্যাপী এই যে সংকট দেখা দিয়েছে, সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে ডেঙ্গু মোকাবিলায় সংশ্লিষ্টদের কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। ডেঙ্গু নির্মূল সরকারি কর্তৃপক্ষকে এখন থেকে সারাবছর নিরলসভাবে কাজ করতে হবে। একইভাবে জনসাধারণকেও এ বিষয়ে সচেতনতার সাথে এগিয়ে আসতে হবে। সবার সম্মিলিত উদ্যোগে এই মহামারী শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা সম্ভব হবে বলে আমরা মনে করি। তাই এখন থেকেই যার যার অবস্থান থেকে ডেঙ্গু নির্মূলে এগিয়ে আসতে আমরা সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

Bellow Post-Green View