চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ডাকপিয়ন’-এর মতো গল্পে আগে কখনো কাজ করিনি: প্রসূন

একজন ডাকপিয়ন। তার জীবনে রয়েছে একটি গল্প। সেই গল্পের বাস্তব রূপ পায় তার সন্তান নিশির উপর। বাবা মেয়ে ও মায়ের ভালোবাসা, নাটকীয়ভাবে প্রেমিকের প্রবেশ এরকম এক গল্পে শিগগির আসতে চলেছে নাটক ‘ডাকপিয়ন’। আর এরকম গল্পে ডাকপিয়ন বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন শক্তিমান অভিনেতা শহীদুজ্জামান সেলিম। আর মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রসূন আজাদ।

নাটকটি সম্পর্কে প্রসূন বলেন: নাটকে আমার বাবা হচ্ছে ডাকপিয়ন। আমি ডাকপিয়নের মেয়ে। যে কিনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে। বাবা ডাকপিয়ন তাই তার চিঠির সূত্র ধরে একটি ছেলের সাথে পরিচয় হয়। কিন্তু ছেলের পরিবার অনেক উচ্চবিত্ত। কিন্তু আমার বাবার জীবনেও একটি ঘটনা আছে। খুবই ভিন্ন ধারার একটি গল্প এটি। বাবার সঙ্গে রসায়ন অনেক ভালো থাকে আমার। এই রকম গল্পে আমি আগে কখনো কাজ করি নাই। দর্শকরা আমাকে নতুন ভাবে দেখবে এই নাটকে।

তাসলিমা মুক্তার পরিচালনায় ভিন্নধর্মী এই নাটকটির গল্প লিখেছেন কুদরত উল্লাহ।

Advertisement

ডাকপিয়ন নিয়ে শহীদুজ্জামান সেলিমের ভাষ্য: খুবই চমৎকার একটি গল্প। এই নাটকটি একটি সামাজিক গল্প, পারিবারিক গল্প। মা, মেয়ে, বাবার গল্প। খুবই ইমোশনাল। আমার কাছে অভিনয় করে খুবই ভালো লেগেছে। আশা করি দর্শকদের ভালো লাগবে।

নাটকটির পূর্বাভাস জানিয়ে পরিচালক তাসলিমা মুক্তা বলেন: এটা ডাকপিয়নের গল্প। চিঠিতে যে আবেদন ছিল ভালোবাসা ছিল। সবার সঙ্গে যোগাযোগের একটা মাধ্যম ছিল এবং একটা সম্পর্ক তৈরি হতো। সেটা কিন্তু মানুষ দেখতে পাচ্ছে না। এখানে আমরা দেখতে পাবো বাবা মেয়ের ভালোবাসা। কিন্তু ডাকপিয়নের জীবন অনেক নিম্নবিত্ত হয়। যার ফলে তার সহধর্মিনী তাকে ছেড়ে চলে যায়। এই নাটকটিতে দর্শকরা দেখবেন এই কারণে যে চিঠি ও ডাকপিয়ন তাদের পরিবারের ভালোবাসার গল্প একটি সুন্দর গল্প।

এ এস মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড নিবেদিত এবং আশরাফ ও সাজ্জাদ প্রযোজিত নাটকটি গত ১ ও ২ মে উত্তরার বিভিন্ন স্থানে দৃশ্যধারণ শেষ হয়েছে। খুব শিগগির ‘ডাকপিয়ন’ নাটকটি প্রচার হবে একটি বেসরকারি চ্যানেলে।