চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ট্রাম্প কি ধোঁয়া টেনে বক্তব্য দিয়েছিলেন: প্রাক্তন সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী

ফ্লোরিডা সমাবেশে যোগ দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বক্তব্যের এক পর্যায়ে সীমান্ত খুলে দেয়ার বিরুদ্ধে বলতে গিয়ে সম্প্রতি কয়েকটি দেশের সন্ত্রাসী হামলার উদাহরণ টানেন।

তিনি বলেন, ‘দেখুন কি হচ্ছে। জামার্নিতে কি হয়েছে আপনারা দেখেছেন। গত রাতে সুইডেনে কি হচ্ছিল আপনারা দেখেছেন? সুইডেনে, আপনারা বিশ্বাস করবেন? সুইডেনে। বিশাল আকারের শরণার্থী নিয়ে তারা এমন সমস্যায় পড়েছে, যা তারা আগে চিন্তাও করেনি।’

ট্রাম্প তাঁর বক্তব্যে ইঙ্গিত দেন যে সেদিন রাতে সুইডেনে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিলো। কিন্তু ওইদিন ‍সুইডেনে এই ধরনের কোনো ঘটনাই ঘটেনি। এই বক্তব্যের ভিডিও ইন্টারনেটে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এবং বিষয়টি নিয়ে চরম বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। পরে সাংবাদিকরা এই বক্তব্যের অর্থ বুঝতে চাইলে হোয়াইট হাউজের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের সুইডেন এম্বাসি কর্তৃপক্ষের কাছে ট্রাম্পের এই বক্তব্যের ব্যাখ্যা জানতে চেয়ে টুইট করে। যেখানে বলা হয় ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কি বোঝাতে চেয়েছেন আমাদের কাছে তা অস্পষ্ট। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষের কাছে ব্যাখ্যা চাচ্ছি।’

বিজ্ঞাপন

টুইটারে সুইডেনের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী কার্ল বিল্ট ট্রাম্পের এই বক্তব্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি টুইট করেছেন, ‘সুইডেনে? সন্ত্রাসী হামলা? সে কি ধোঁয়া টেনে বক্তব্য দিচ্ছে? প্রচুর প্রশ্ন করছি।

সবাই বলাবলি করছে যে, ট্রাম্প ফক্স নিউজের ফ্রাইডে নাইট শো দেখেছেন। যেখানে অনুষ্ঠানটির পরিচালক টাকার কার্লসন আমি হোরোউজড নামের এক চলচ্চিত্র নির্মাতার সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন। সেখানে ওই পরিচালক সুইডেনে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে দেশটির শরণার্থী নেয়াকে দায়ী করে বক্তব্য দেন।

সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে উল্টা-পাল্টা বক্তব্য দেয়ার উদাহরণ সৃষ্টি করলেন ট্রাম্প। ট্রাম্পের কাউন্সিলর কেলইয়ানে কনওয়ে কয়েকদিন আগে ‘বোলিং গ্রিন ম্যাসাকার’ নামে ভুল একটি গণহত্যার রেফারেন্স টেনেছিলেন যা কখনো ঘটেই নি। হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র সেন স্পাইসার আটলান্টায় সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিলো বলে চালিয়ে দেন। পরে অবশ্য ভুল শুধরে ওরলান্ডো বলা হয়েছিলো।

বিজ্ঞাপন