চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ট্রাম্পকে শাস্তি না দিলে এমনটা আবার ঘটতে পারে’

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন পরবর্তী বিচারে ডেমোক্র্যাটদের শুনানি মার্কিন সিনেটে শেষ হয়েছে।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে যুক্তি ও প্রমাণ তুলে ধরেন ডেমোক্র্যাটরা। ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলের সহিংসতায় ট্রাম্পের সংশ্লিষ্টতা প্রমাণে বেশ কিছু অপ্রকাশিত ভিডিও দেখানো হয়।

বিজ্ঞাপন

ডেমোক্র্যাটদের দাবি, নির্বাচনের ফল চূড়ান্ত হওয়া প্রতিহত করতে চেয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তারা দাবি করেন, ট্রাম্পের এজন্য কোনো অনুশোচনা ছিলো না এবং তাকে দোষী সাব্যস্ত করে শাস্তি না দিলে ভবিষ্যত মার্কিন প্রেসিডেন্টরা এর পুনরাবৃত্তি ঘটাতে পারেন।

অন্যদিকে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টের আইনজীবীরা দাবি করেন, ট্রাম্প শুধুমাত্র নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ এনেছেন এবং এটি তার মতপ্রকাশের স্বাধীনতার চর্চার আওতায় পড়ে। ট্রাম্পের আইনজীবীদের যুক্তি উপস্থাপন দিয়ে শুক্রবার আবারও শুনানি শুরু হবে।

ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে হামলায় উস্কানির অভিযোগে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে গত ১৩ জানুয়ারি অভিশংসিত করে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ। এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে হলে তা সিনেটেও পাস হতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্পই একমাত্র প্রেসিডেন্ট, যিনি কংগ্রেস হাউজে দ্বিতীয় দফায় অভিশংসিত হয়েছেন।

প্রথম দফায় ২০১৯ সালে কংগ্রেস ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রস্তাব পাশ করে। কিন্তু সিনেটে গিয়ে তা আটকে যায়। কারণ সেই সময় সেখানে রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল।

এর আগে ১৯৯৮ সালে বিল ক্লিনটন এবং ১৮৬৮ সালে অ্যান্ড্রু জনসনকে হাউকে অভিশংসিত করে কংগ্রেস। কিন্তু শেষ পর্যন্ত প্রতিনিধি পরিষদের সেই সিদ্ধান্ত সিনেটে গিয়ে আটকে যায়।

বিজ্ঞাপন