চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘টোকিও’কে হারিয়ে আবেগে ভাসছেন ‘মানি হেইস্ট’র দর্শকরা

প্রফেসর, টোকিও, রাকেল, আলিসিয়া। এই নামগুলোর সঙ্গে স্প্যানিশ সিরিজ মানি হেইস্টের দর্শকরা খুবই পরিচিত। চরিত্রগুলি দর্শকদের খুবই প্রিয়। আর তাই সিজন ফাইভে গ্যাংয়ের অন্যতম সদস্য টোকিওর মৃত্যুর পর রীতিমত শোকাহত ভক্তরা।

৩ সেপ্টেম্বর নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেয়েছে মানি হেইস্টের বহু প্রতীক্ষিত পঞ্চম সিজন। এই সিজনে দর্শকরা অপ্রত্যাশিত ভাবে হারিয়েছেন তাদের প্রিয় টোকিওকে। মন ভেঙে গেছে তাদের। টুইটার সহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায় শোক প্রকাশ করছেন অনেক ভক্তই।

টুইটারে একজন লিখেছেন, ‘টোকিওকে স্বার্থপর ও নিয়ন্ত্রণহীন রূপেই দেখা গেছে এতদিন। কিন্তু আজ রাতে অন্য রূপে দেখা গেল। নিজের চাইতে দলের কথাই বেশি ভাবলেন তিনি। মানি হেইস্ট চমকে দিইয়েছে, কিন্তু কষ্ট পাচ্ছি।’

আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘আমার দেখা সবচেয়ে কষ্টের দৃশ্য। টোকিও!’

বিজ্ঞাপন

টোকিওর আরেক ভক্ত টুইটারে লিখেছেন, ‘টোকিও জেলে যেতে চাননি। তাই নিজেকে বোমায় উড়িয়ে দিলেন। তিনি সবচেয়ে সাহসী নারী।’

চতুর্থ সিজনে নাইরোবির মৃত্যুর পরেও অনেক দর্শকের মন ভেঙে গিয়েছিল। সেই স্মৃতি মনে করে আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘এখনও নাইরোবির মৃত্যুর কষ্ট কাটিয়ে উঠতে পারিনি। এরপরেই দেখলাম পঞ্চম সিজন।’

টোকিওকে বিদায় দিয়ে এক দর্শক লিখেছেন, ‘টোকিওর হৃদয়বিদারক বিদায় নেয়া। বাস্তবেও আমাদের প্রিয়জনদেরকে একদিন বিদায় জানাতে হবে।’

‘মানি হেইস্ট’-এর চতুর্থ সিজন এসেছিল গত বছরের এপ্রিলে। তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছে চতুর্থ সিজনটি। এরপর থেকেই এর পঞ্চম সিজনের অপেক্ষায় ছিলেন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে থাকা প্রফেসর ভক্ত দর্শক অনুরাগীরা! ‘মানি হেইস্ট’ গ্যাংটির ভাগ্যে কী আছে, তা নিয়ে জল্পনাকল্পনাও কম হয়নি। বিশেষ করে চতুর্থ সিজনে ক্লিফ হ্যাঙ্গার প্রফেসরের আস্তানাটি পুলিশ চিনিয়ে দেয়ার পর কী হবে তা জানতে উদগ্রীব হয়ে ছিলেন ভক্তরা।

পঞ্চম মৌসুমের দ্বিতীয় ভলিউম মুক্তি পাবে চলতি বছরের ৩ ডিসেম্বর।

বিজ্ঞাপন