চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টিম হোটেল ছাড়ছেন ক্রিকেটাররা

করোনা মহামারির এই সময়ে খেলা শুরুর প্রধান শর্তই হচ্ছে খেলোয়াড়দের বায়ো-সিকিউর বাবলের মধ্যে রাখা। শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলও ঢুকে পড়েছিল জৈব-নিরাপত্তার বেষ্টনীর মধ্যে। কিন্তু সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা না কাটায় শেষ পর্যন্ত সুরক্ষা বলয় ভেঙে পড়ছে।

জাতীয় দলের অনুশীলন তিন দিনের জন্য বন্ধ রাখছে বিসিবি। টিম হোটেল সোনরাগাঁও ছেড়ে টাইগাররা ফিরে যাচ্ছেন বাসায়। কয়েকজন ক্রিকেটার থাকবেন বিসিবির একাডেমি ভবনে।

বিজ্ঞাপন

বিসিবি চিকিৎসক ডা. দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন, ‘তিন দিনের ছুটির কারণে কিছু ক্রিকেটার আজই হোটেল ছাড়বেন। রোববার চেক আউট সময়ে কয়েকজন হোটেল ছাড়বেন। কে কখন হোটেল ছাড়বেন সেটি তাদের ব্যক্তিগত ইচ্ছার উপর নির্ভর করছে। সিরিজ নিয়ে পরবর্তী আপডেট পেলেই জৈব সুরক্ষা বলয় নিয়ে নতুন করে ভাবা হবে।’

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা যাওয়ার কথা ছিল ২৭ সেপ্টেম্বর। সে অনুযায়ীই হোটেল বুকিং দিয়ে রেখেছিল বিসিবি। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী শনিবারই ছিল টাইগারদের শেষ অনুশীলন।

সফর পিছিয়ে যাওয়ায় প্রাথমিক দলের ২৭ ক্রিকেটার বিশ্রামে থাকবেন মঙ্গলবার পর্যন্ত। এই সময়ের মধ্যেই চূড়ান্ত হয়ে যাবে শ্রীলঙ্কা সিরিজের ভাগ্য।

বিজ্ঞাপন

যদি সফর না হয় তাহলে কী করবেন মুমিনুল-মুশফিকরা, এ প্রশ্নের জবাবে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান সংবাদমাধ্যমকে বলেন: আমরা তো পরিকল্পনার মধ্যেই আছি। এখন তিন দিনের বিরতি দিয়েছি, এই তিন দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত আসলে আমরা আবার অনুশীলন নিয়ে পরিকল্পনা করবো।’

‘‘বিসিবি সভাপতি (নাজমুল হাসান পাপন) তো বলেছেন যদি সফর না হয় একটা ঘরোয়া টুর্নামেন্ট করবো। সেটা আমাদের মাথায় আছে। প্ল্যান ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’ সব করাই আছে। আমরা আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ীই আছি। যেহেতু খেলোয়াড়রা ৭-৮ দিন অনুশীলন করে ফেলেছে সেহেতু একটা বিরতির দরকার আছে।’’

করোনা পরীক্ষায় উতরে যাওয়া ১৮ ক্রিকেটার ২০ সেপ্টেম্বর উঠেছিলেন টিম হোটেলে। পরে মিরপুরের একাডেমি ভবনে আইসোলেশনে থাকা কয়েকজন ক্রিকেটারও যোগ দেন দলীয় বলয়ে। আবু জায়েদ রাহি ছাড়া তৃতীয় ধাপের কোভিড-১৯ টেস্টে নেগেটিভ হন অবশিষ্ট ২৬ ক্রিকেটার।

সফরের জন্য ২৭ সদস্যের দল ঘোষণা করে বিসিবি। খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফদের তিনদফা করানো হয় করোনা পরীক্ষা। সিরিজ নিয়ে লঙ্কান বোর্ড থেকে সবুজ সংকেত না পাওয়ায়  চতুর্থ ও শেষ ধাপের কোভিড-১৯ টেস্ট স্থগিত করে বিসিবি।

কিছুদিন একাডেমিতে আইসোলেশনে কাটিয়ে শনিবারই প্রথম দলীয় অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন পেসার ইবাদত হোসেন। দ্বিতীয় ধাপে করোনা পজিটিভ হয়ে পরে নেগেটিভ হলেও সাইফ হাসান যোগ দিতে পারেননি অনুশীলনে। ২৭ জনের মধ্যে এ তরুণ ওপেনারেরই কেবল কোচদের অধীনে স্কিল নিয়ে কাজ করা হয়নি।