চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কানাডায় শহীদ মিনার উদ্বোধনের সর্বজনীন কমিটি ঘোষণার প্রস্তাব

সর্বসম্মতভাবে কানাডার টরন্টোতে শহীদ মিনার উদ্বোধনের জন্য একটি সর্বজনীন কমিটি ঘোষণার প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়েছে।

২৮ ফেব্রুয়ারি কানাডার টরন্টোতে আইএমএলডি’র মিথ্যাচার ও বিতর্কিত ভূমিকার প্রতিবাদে ‘লুটেরা বিরোধী মঞ্চ’র আহ্বানে এক অনলাইন সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অন্টারিওর সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, পেশাজীবী সংগঠন ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় এই প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি শহীদ মিনার নির্মাণ পরিস্থিতি ব্যাখ্যার নামে ‘লুটেরা’দের রক্ষায় OTIMLD (Organization for Toronto International Mother Language Day Monument Inc.) এর একটি পাতানো সভা অনুষ্ঠিত হয়। যদিও বেশিরভাগ সভায় প্রতিনিধিত্বকারী কোন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ-ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন না। সেই পাতানো বৈঠকে অভিযুক্ত ও বিতর্কিত লুটেরাকে বৈধতা দানের পক্ষে তাদের সুবিধাভোগী কতিপয় ব্যক্তির ভূমিকার তীব্র নিন্দা ও ঘৃণা প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

অনলাইন সভায় বক্তারা বলেন, এই ঘটনার মাধ্যমে IMLD নিজেদের আরো বিতর্কিত করলেন এবং তাদের প্রতি আস্থার শেষ সুযোগটাও হাতছাড়া করলেন। বর্তমান কমিটির চেয়ারম্যান ও সভাপতি সংগঠনের অন্যান্য পরিচালকের মতামত ও সিদ্ধান্তের তোয়াক্কা না করে নিজেরা স্বেচ্ছাচারিতার ভিত্তিতে সংগঠনটি পরিচালনা করছেন। সংগঠনের কাঠামোতে চেয়ারম্যান নামে কোন পদ না থাকলেও চেয়ারম্যান পদ ব্যবহার করে, বর্তমান কমিটির চেয়ারম্যান ও সভাপতি লুটেরা বিরোধী আন্দোলনসহ নানা বিষয়ে ক্রমাগত মিথ্যাচার ও ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে যাচ্ছেন।

এ সব ঘটনার প্রেক্ষিতে আমরা মনে করি, এই কমিটির চেয়ারম্যান ও সভাপতি আইএমএলডি’র দায়িত্বশীল পদে থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন। লুটেরা বিরোধী মঞ্চ থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি উদযাপন অনুষ্ঠান থেকে অভিযুক্তকে বহিষ্কারের দুই সপ্তাহ সময় দেয়া হয়েছিল, আর মাত্র ৫ দিন বাকি আছে এরমধ্যে এ বিষয়ে স্পষ্ট ঘোষণা দেয়া না হলে, কমিটির প্রতি অনাস্থা আনা হবে এবং তা বাতিলের কর্মসূচি দেয়া হবে।

আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে দ্ব্যর্থহীন বলা হয়, শহীদ মিনার নির্মাণ প্রক্রিয়ার সাথে কোন অভিযুক্ত, বিতর্কিত কোন ব্যক্তিকে রাখা হবে না। শহীদ মিনারকে আমরা কোনভাবেই কলঙ্কিত হতে দেবো না। প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের স্বার্থে লুটেরা বিরোধী সামাজিক আন্দোলন চলবে।

বক্তারা বলেন, যারা লুটেরাদের রক্ষার কমিউনিটির স্বার্থের বিপক্ষে যাবেন তাদেরকেও লুটেরাদের সহযোগী হিসেবে বর্জন করা হবে।