চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টরন্টোর শহীদ মিনার ‘লুটেরা’ মুক্ত হওয়ায় বিজয় র‍্যালী

প্রায় দুই মাস লুটেরা বিরোধী মঞ্চ, কানাডার নেতৃত্বে এক ভার্চুয়াল সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে কানাডার টরন্টোতে শহীদ নির্মাণ কমিটিতে থাকা দুইজন অভিযুক্ত ও বিতর্কিত ব্যক্তি গাজী বেলায়েত হোসেন মিঠু ও তার স্ত্রী নাহিদ আখতারকে বাদ দেয়া হয়েছে।

আন্দোলনের প্রথম পর্বে মিঠু এবং পরবর্তীতে তার স্ত্রী নাহিদকে বাদ দেয়া হয়। তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যাংক থেকে অর্থ আত্মসাত ও কানাডায় পাচারের অভিযোগ আছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

গত ১০ জানুয়ারী আইএমএলডি’র এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় তাদের কমিটি পুনর্গঠন করা হয়েছে এবং পুনর্গঠিত কমিটিতে লুটেরা বলে অভিযুক্ত ও বিতর্কিত কোন ব্যক্তি নেই। পূর্বের ৩৭ সদস্যের কমিটির স্থলে নতুন করে ৭ সদস্যের একটি বোর্ড গঠন করা হয়, যাদের কাজ হবে টরন্টো সিটি অফিসকে নব নির্মিত শহীদ মিনারটি হস্তান্তর করা।

বিজ্ঞাপন

আইএমএলডি’র পুনর্গঠিত কমিটির ঘোষণায় লুটেরা বিরোধী মঞ্চ মনে করে এটা লুটেরা বিরোধী ধারাবাহিক সামাজিক আন্দোলনের নৈতিক বিজয়। এ উপলক্ষে, মঞ্চের পক্ষ থেকে ১৪ মার্চ রোববার বিকেলে এক বিজয় কার র‍্যালী ও নব নির্মিত শহীদ মিনারে সকল শহীদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের কর্মসূচি পালিত হয়। করোনাকালে এটাই ছিল টরন্টো শহরে প্রবাসী বাঙালিদের প্রথম শীতল হাওয়ায় প্রকাশ্য কর্মসূচি। পরিপূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এই কর্মসূচি পালিত হয়।

বিজয় র‍্যালী শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনার স্থল ডেনটনিয়া পার্কে এসে শেষ হয়। সেখানে মঞ্চের কর্মী-সংগঠকরা দাঁড়িয়ে ‘লুটেরা রুখো, স্বদেশ বাঁচাও স্লোগানে’- মুষ্ঠিবদ্ধ হাত উত্তোলন করে শপথ উচ্চারণ করে- লুটেরা বিরোধী সামাজিক আন্দোলন অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার পূনর্ব্যক্ত করেন। একই সাথে কানাডায় চিহ্নিত লুটেরাদের বর্জন এবং যারা তাদের সহযোগিতা করবে তাদেরও সামাজিকভাবে বয়কট করার ঘোষণা দেয়া হয়।

মঞ্চের পক্ষ থেকে এই আন্দোলনে যে সকল ব্যক্তিরা বিভিন্নভাবে অংশগ্রহণ ও সহযোগিতা করছেন তাদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানানো হয়।