চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জেদ্দায় কারফিউ সময় পরিবর্তন; মসজিদে নামাজ নিষিদ্ধ

বৈশ্বিক করোনাভাইরাস প্রতিরোধের সৌদি সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপের অংশ হিসেবে সৌদি আরবের বন্দর নগরী জেদ্দায় আবারও কারফিউর সময়সীমা পরিবর্তনসহ নিষিদ্ধ করা হয়েছে মসজিদে জামাতে নামাজ।

৬ জুন  থেকে ২১ জুন পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ছয়টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত কারফিউ শিথিল থাকবে, এছাড়া পবিত্র নগরী মক্কার পাশাপাশি জেদ্দা অঞ্চলে মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়, একসাথে ৫ জনের বেশি জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপি)এর বরাত দিয়ে প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিক সৌদি গেজেট।

বিজ্ঞাপন

গত ২৩ মার্চ থেকে সৌদি আরব জুড়ে জারি হওয়া কারফিউ লকডাউন, আন্তর্জাতিক যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা বন্ধ, মসজিদে জামাতে নামাজ আদায় বন্ধ, অফিস আদালত, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বিপণিবিতান, সিনেমা হল, মার্কেটগুলো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকার পর সম্প্রতি করোনাভাইরাস পরিস্থিতি আশানুরূপ উন্নতি হওয়ায় গত ২৮ মে থেকে পবিত্র নগরী মক্কার ছাড়া সৌদি আরব জুড়ে সকাল ৬ টা থেকে  সন্ধ্যা ৮ টা পর্যন্ত কারফিউ শিথিল করেন সৌদি সরকার।

কিন্তু গতকাল থেকে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় আজ প্রাথমিকভাবে বন্দরনগরী জেদ্দা অঞ্চলে কারফিউ সময়সীমা পরিবর্তন করেন সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞাপন

সূত্র বলছে, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে যদি অন্যান্য অঞ্চলেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বাড়তে থাকে তাহলে ওইসব অঞ্চলেও কারফিউসহ লকডাউন এর আওতায় আসতে পারে।

অন্য একটি সূত্র বলছে, শুধু করোনাভাইরাস এর কারণেই জেদ্দায় কারফিউ সময়সীমা পরিবর্তন করা হয় নাই।

সূত্রটি আরো বলছে, আসন্ন হজের ব্যাপারে সৌদি সরকার আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে যাচ্ছে যার কারণে মক্কা জেদ্দা অঞ্চলে অস্থায়ী হাসপাতাল নির্মাণসহ অনেকগুলো পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে যদিও অফিশিয়ালি এ ব্যাপারে এখনো কোনো কিছু বলা হয়নি তারপরেও হজের ব্যাপারে প্রস্তুতি গ্রহণ করছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়।

যদিও আন্তর্জাতিকভাবে ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর আসন্ন হজে অংশে না নেয়ার ব্যাপারে জানিয়ে দিয়েছে
অন্যদিকে  ইউরোপ, আমেরিকার হজের এজেন্সিগুলো ওই সমস্ত দেশের হাজীদের জন্য মক্কা মদিনায় যেসব হোটেল বুকিং দেয়া হয়েছিল তা ইতিমধ্যে বাতিল করা হয়েছে হয়েছে বলে হোটেল সূত্রগুলো জানিয়েছে। যার কারণে আন্তর্জাতিক পরিসরে হজের অংশগ্রহণ নিয়ে দুশ্চিন্তা বৃদ্ধি পাওয়ায় সৌদি সরকার আগামী কিছুদিনের মধ্যেই হজের  বিষয়ে আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে।

গতকাল পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনা ভাইরাসে ৯৫৭৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন এরমধ্যে ২২৫ জন বাংলাদেশি সহ কোভিড-১৯এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৬৪২ জন।তবে সৌদি আরবে কোভিড-১৯  থেকে রেকর্ড সংখ্যক অর্থাৎ ৭০ হাজার ৬১৬ জন সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন।