চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জেএমবি’র হুমকিতে সীমিত পিপি’র চলাচল

পঞ্চগড়ে পুরোহিত হত্যা মামলার পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি)-কে হত্যার হুমকি দিয়ে জেএমবি চিঠি দেওয়ার পর তিনি বাড়তি সতর্কতা নিয়ে চলাফেরা করছেন। হুমকি পাওয়ার পর পিপি থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করলেও পুলিশ এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি কোন ব্যক্তি এই হত্যা হুমকির সঙ্গে জড়িত।

হুমকি পাওয়ার পর থেকে পিপি মো. আমিনুর রহমান তার কাজকর্ম সীমিত করে ফেলেছেন। তিনি এখন বাসা এবং আদালত ছাড়া আর কোথায় যাচ্ছেন না। চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন, চিঠিটি আসার পর থেকে সাধারণতঃ কোথাও বের হই না; সকালে আমার কর্মস্থলে যাই, সন্ধ্যায় বাসায় ফিরে আসি।

বিজ্ঞাপন

তবে, ‘চিঠি পাওয়ার দিনই সদর থানার ওসিকে ডেকে নিয়ে চিঠির কপি দিয়েছি এবং সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছি,’ বলেও জানান পিপি।

হুমকির কারণ জানতে চাইলে আমিনুর রহমান বলেন, যজ্ঞেশ্বর রায় হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার জেএমবি সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা পরিচালনা করায় ‘আমাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিষয়ে তিনি বলেন, আমি নিজেই সর্তকভাবে চলাফেরা করি। তবে, রাতে কয়েকবার পুলিশ আমার বাড়ি টহল দেয়।

আদালত পাড়ায় অবস্থিত তার ব্যক্তিগত অফিসে সরকারি ডাকে হুমকির চিঠি আসে। নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহেদিন বাংলাদেশ (জেএমবি)’র নামে পাঠানো চিঠিতে তাকে হত্যা করে তার ক্ষতবিক্ষত লাশের টুকরা শেয়াল ও কুকুরকে দিয়ে খাওয়ানোর কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

সাদা কাগজে হাতে লেখা এক পৃষ্ঠার চিঠিতে প্রেরকের নাম ছাড়াও ‘জেএমবি’নাম উল্লেখ আছে।

পঞ্চগড় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মমিনুল ইসলাম মমিন চ্যানেল আই অনলাইনকে জানান, এ বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। উড়োচিঠি হলেও বিষয়টি নিয়ে সর্বোচ্চ সর্তকতা নেওয়া হয়েছে।

গত ২১ ফেব্রুয়ারি দেবীগঞ্জের সোনাপোতা গ্রামের সন্তগৌরীয় মঠের অধ্যক্ষ যজ্ঞেশ্বর রায়কে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। তাদের গুলি ও বোমার বিস্ফোরণে আহত হন আরও দুইজন। ঘটনায় নিহতের বড় ভাই রবীন্দ্রনাথ থানায় হত্যা মামলা করেন। অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে আরেকটি মামলা করে পুলিশ।

Bellow Post-Green View