চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জিততে থাকলে ক্লান্তি আসে না

‘আপনি যখন জিতবেন, কিছুই ক্লান্তিকর মনে হবে না।’ কথাটা রোনাল্ড কোম্যানের। রায়ো ভায়েকানোর বিপক্ষে দারুণ জয়ে কোপা ডেল রের শেষ আটে জায়গা করে নেয়ার পর বার্সেলোনা কোচ বলেছেন কথাটি।

বুধবার রাতে রায়োর মাঠে ২-১ গোলের দারুণ জয়ে কোপা ডেল রের শিরোপার দৌড়ে যাত্রা অব্যাহত রেখেছে বার্সেলোনা। অবশ্য শুরুতে পিছিয়ে পড়েছিল অতিথিরা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর ৬৩ মিনিটে এগিয়ে যায় রায়ো। তারপর মেসি ঝলক। ৬৯ মিনিটে সমতা টানেন অধিনায়ক। পরে জয়সূচক গোলটি আনেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং।

স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়কে টোকা মেরে দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মেসি। ফিরেই পেলেন গোল। দলও প্রতিযোগিতার সেরা আটে গেল।

মাঠে ভালো সময়ই পার করছে বার্সা। মৌসুমের শুরুর দিকে প্রতিপক্ষের মাঠে আটকে যাচ্ছিল তারা। সেই গেরোও বেশ ভালোভাবেই খুলছে।

তাইতো কোম্যান বলছেন, ‘এমন জয়গুলো আমাদের আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

বার্সার পরের ম্যাচ অ্যাথলেটিক ক্লাবের বিপক্ষে। লিগের ম্যাচ। ১ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে খেলা ন্যু ক্যাম্পে।

মেসি তো মেসিই। নতুন বছরে দারুণ ফর্মে আছেন। ফর্মের তুঙ্গে আছেন আয়াক্স থেকে আসা ডি ইয়ংও। এমাসে চার গোল করে ফেলেছেন। কোম্যান বলছেন এই ডি ইয়ং আয়াক্সে থাকাকালীন সময়ের চেয়ে এখন অনেক বেশি পরিপূর্ণ খেলোয়াড়।

জানুয়ারি কঠিন এক মাস ছিল কাতালানদের জন্য। টানা ম্যাচ, যার বেশিরভাগই প্রতিপক্ষের মাঠে। সামনের মাসেও অনেক ম্যাচ আছে বার্সার। কোপা ডেল রে, লিগ ছাড়াও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউটে পিএসজির বিপক্ষে নামতে হবে। ভ্রমণজনিত ক্লান্তির বিষয়টা তো থাকেই।

‘দল কঠিন এক মাসে মানসিক শক্তির জায়গাটা দেখিয়েছে। জয় তুলেছে। জয়গুলো আমাদের প্রাপ্য ছিল। দল অনেক পয়েন্ট তুলেছে।’

‘এটা দুঃখজনক যে সুপারকোপার শিরোপা জিততে পারিনি আমরা। কিন্তু লা লিগায় আমরা শিরোপার লড়াইয়ে ফিরেছি।’

‘খারাপ সময়গুলো আমরা কাটিয়ে উঠেছি। আমরা হয়ত আরও বেশি বেশি গোল করতে পারতাম। কিন্তু আশার কথা আমরা উন্নতি করে চলেছি।’ বলেছেন কোম্যান।