চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জিকা ভাইরাসে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ

জিকা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত বা উদ্বিঘ্ন হওয়ার কিছু নেই জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, যদি কারো দেহে জিকা ভাইরাসের জীবাণু পাওয়া যায়, তার চিকিৎসার ব্যয় বহন করবে সরকার।

দক্ষিণ আমেরিকা, মধ্য আমেরিকা, ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের ৩০টি দেশসহ ইউরোপ ও এশিয়ার কয়েকটি দেশে নব উদ্ভুত জিকা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পৃথিবীব্যাপি সতর্কতা জারি করে চলতি মাসের প্রথম দিন থেকেই।

বিজ্ঞাপন

এই সর্তক বার্তাকে আমলে নিয়ে বাংলাদেশও নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা প্রস্তুতি।

বাংলাদেশের নেয়া নিরাপত্তা প্রস্তুতি এবং জিকা ভাইরাস নিয়ে তথ্য তুলে ধরতেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে করা হয় সংবাদ সম্মেলন।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের অধ্যাপক ডা.আবুল খায়ের মোহাম্মদ শামসুজ্জামান বলেন,‘আমাদের পূর্বের অভিজ্ঞতা থেকে আমরা বলতে পারি জিকা ভাইরাস ডেঙ্গুর মতো প্রাণঘাতী নয়। কারণ গত ৬০ বছরের ইতিহাসে জিকার ফলে রক্তপাতের মতো ঘটনা ঘটেনি। তাই আমাদের আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নেই।’

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেন, এডিশ মশার মাধ্যমে এই ভাইরাস ছড়ালেও ডেঙ্গুর মতো এর কার্যক্ষমতা নেই ।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এডিস মশায় জিকা ভাইরাসের জীবাণু আছে কি-না, তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত জিকা ভাইরাস আক্রান্ত কাউকে পাওয়া যায়নি।’

‘জিকা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। তারপরও আমরা সতর্ক আছি। এ ব্যাপারে এখানকার কর্মকর্তারা বলবেন। আমি এতটুকু বলতে পারি পর্যাপ্ত ব্যাবস্থা নেওয়া হয়েছে তাই আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।’

জিকা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়া বাংলাদেশের প্রবেশদ্বার দিয়ে কাউকে দেশে ঢুকতে দেয়া হবে না বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

Bellow Post-Green View