চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জাতির জনকের প্রতি বিচারপতি-আইনজীবীদের শ্রদ্ধা

জাতীয় শোক দিবসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ও আইনজীবীরা।

দিনের শুরুতেই সুপ্রিম কোর্টের জাজেস লাউঞ্জে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করে শ্রদ্ধা জানান প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। এসময় তার সাথে হাইকোর্ট বিভাগের আরো কয়েকজন বিচারপতি উপস্থিত ছিলেন। শোক দিবসের কর্মসূচীর অংশ হিসেবে এরপর সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগের বিচারপতিদের অংশগ্রহণে একটি ভার্চুয়াল আলােচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হােসেনসহ আপিল বিভাগের ৪ জন এবং হাইকোর্টের ২৮ জন বিচারপতি ভার্চুয়াল সে আলােচনা সভায় বক্তব্য রাখেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন তার বক্তব্যে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের জাতীয় জীবনে এক জাতির্ময় আলােকবর্তিকা। তিনি অন্যায়ের কাছে কখনো মাথা নত করেননি বলে তার জীবনের অনেকটা সময় কারাগারে কেটেছে। গণতন্ত্র এবং আইনের শাসনকে সুসংহত করতে বঙ্গবন্ধু জীবনের শেষদিন পর্যন্ত প্রাণান্তকর চেষ্টা করেছেন। তিনি বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের কথা শুধু ১৯৭২ সালের সংবিধানেই বলেননি, তারও আগে তিনি ১৯৫৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারী পাকিস্তানের গণপরিষদে নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণের জোর দাবী উত্থাপন করেন। আর ১৯৭২ সালের ১৬ ডিসেম্বর তিনি আমাদের একটি সংবিধান উপহার দেন। দেশের বিচার বিভাগ জাতির জনকের আদর্শকে ধারণ করে আইনের শাসন এবং সকলের জন্য ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে এবং যাবে। আর দেশের মানুষ স্বল্প সময়ে ন্যায়বিচার পেলে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে।’

ভার্চুয়াল এই আলোচনা সভা শেষে ১৫ আগস্ট শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে দাড়িয়ে ২ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের সদস্যদের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মােনাজাত করা হয়। মােনাজাত পরিচালনা করেন হাইকোর্টের বিচাপতি এম ইনায়েতুর রহিম। এছাড়া, শোক দিবস উপলক্ষে সুপ্রিম কোর্ট জামে মসজিদে পবিত্র কুরআনখানি ও দোয়ার আয়োজন করাসহ দুঃস্থদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ের উদ্যোগে শোক দিবস উপলক্ষে আরেকটি ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথের সঞ্চালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এছাড়া আলোচনায় অংশ নেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা, অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মোমতাজ উদ্দিন ফকির, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির উল্লাহ, একেএম আমিন উদ্দিন (মানিক), বিপুল বাগমার, অমিত দাস গুপ্ত, বিএম আবদুর রাফেল, গিয়াস উদ্দিন আহমেদ ও মো. আসাদুজ্জামান মনির। ভার্চুয়াল এ আলোচনা সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বিভিন্ন বইয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে তথ্যমূলক বক্তব্য রাখেন।

এরপর ১৫ আগস্টের শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির উল্লাহ।

অন্যদিকে, আজ রাজধানীর ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ও বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ।