চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘জরুরি প্রাণী খাদ্যের’ স্টিকারযুক্ত পিকআপে অস্ত্র-ইয়াবার চালান

আটক ৪

‘জরুরী প্রাণী খাদ্য উৎপাদন কাজে নিয়োজিত’ স্টিকার সাঁটিয়ে অবৈধ অস্ত্র ও ইয়াবার চালান বহন করে আসছিলো একটি চক্র। মাদক ব্যবসা নির্বিঘ্ন করতে ব্যবসায়ীদের চাহিদামতো চড়া দামে অস্ত্রও সরবরাহ করা হতো।

বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর আদাবর এলাকায় অভিযান চালিয়ে কক্সবাজার থেকে আসা ডাব ও কাঁঠালভর্তি একটি পিকআপসহ চারজনকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-২)।

বিজ্ঞাপন

এসময় তাদের কাছ থেকে দুটি দেশীয় বন্দুক, ৬ রাউন্ড গুলি এবং ৭ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

আটকরা হলেন: মো. ওসমান (৩৭), শাহজাহান সরকার (৩৬), সেলিম সরকার (৪৫) ও নুর ইসলাম (৩৫)।

বিজ্ঞাপন

র‌্যাব জানায়: ‘জরুরী প্রাণী খাদ্য উৎপাদন কাজে নিয়োজিত’ স্টিকার সাঁটিয়ে কক্সবাজার থেকে অবৈধ অস্ত্র ও ইয়াবার চালান এনে ঢাকা ও গাজীপুরে সরবরাহ করে আসছিল চক্রটি। কক্সবাজার থেকে রওনা হওয়ার পর তাদের সামনে প্রাইভেটকারযোগে একটি এসকর্ট পার্টি থাকে। রাস্তায় চেকপোস্ট থাকলে বা গাড়ী তল্লাশী হলে এসকর্ট পার্টি সামনে থেকে সতর্ক করে দেয়।
র‌্যাব-২ এর স্পেশালাইজড ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানির কমান্ডার পুলিশ সুপার (এসপি) মুহম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী জানান: কক্সবাজার থেকে কাঁচামাল পরিবহণের আড়ালে মাদক ও অস্ত্রের চালান আসছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে আদাবর থানাধীন রিং রোডস্থ হক সাহেবের মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি কার্যক্রম চালানো হয়। গভীর রাতে কাঁঠাল ও ডাব ভর্তি একটি পিকআপে ড্রাইভার ও হেলপারসহ ৪ জনকে দেখতে পেয়ে চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে চালানটি কক্সবাজার থেকে এসেছে বলে জানায়।

এসময় পিকআপে থাকা দুজনের কাছে থাকা ব্যাকপ্যাক থেকে ২টি দেশীয় তৈরি বন্দুক, ৬ রাউন্ড গুলি এবং সবার কাছ থেকে মোট সাত হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

আটকদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে তিনি জানান: মাদক ব্যবসা নির্বিঘ্ন করাতে মাদক ব্যবসায়ীদের চাহিদামতো কক্সবাজার থেকে অস্ত্রের চালান এনে মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে চড়া দামে বিক্রয় করতেন তারা।

তাদের বিরুদ্ধে আদাবর থানায় মাদক ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান এসপি মহিউদ্দিন ফারুকী।