চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জন্ম শহরে কবি অমিতাভ পালকে স্মরণ 

কবি, গল্পকার ও সাংবাদিক অমিতাভ পালের জন্ম শহর ময়মনসিংহ। এই শহরেই তিনি বেড়ে উঠেছেন। সদ্য প্রয়াত এই কবি ও তার সৃষ্টিকে স্মরণ করলো ময়মনসিংহর সাহিত্য অঙ্গনের মানুষেরা। 

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সকাল ১০টায় ময়মনসিংহের জয়নুল উদ্যানের তেঁতুলতলায় ‘কবি অমিতাভ পাল স্মরণ ও পাঠ’ নামে শোক ও স্মরণ সভার আয়োজন করে পরম্পরা।

কবি শামসুল ফয়েজের সভাপতিত্বে শোক সভায় ব্যক্তি অমিতাভ পাল ও তার সাহিত্য কর্ম নিয়ে আলোচনা করেন কবি ফরিদ আহমদ দুলাল, কবি সেলিম মাহমুদ, কথাশিল্পী শাহীদা হোসেন রীনা, কবি আশিরব্রত চৌধুরী, কবি ও কথাশিল্পী হান্নান কল্লোল ও কবি তপন বর্মন।

এছাড়াও কথা বলেন কবি আওলাদ হোসেন, কবি আশিক আকবর। কবিতাপাঠ করেন, কবি মুহাম্মদ সিরাজ-উদদীন, কবি জেবুন্নেছা রীনা, কবি শরৎ সেলিম, কবি জুলহাস উদ্দিন আকন্দ কবি সালমা বেগ, কবি কামরুল হাসান রিয়েল, কবি আরাফাত রিলকে, কবি আলমাস হোসাইন সাজা, কবি রবিন বরকত উল্লাহ, কবি গণেশ সাহা।

কবি আওলাদ হোসেন বলেন, নিছক সাহিত্যিক হওয়ার জন্য বা কবি যশপ্রার্থনার জন্য নয়, অমিতাভ পাল লিখতেন পারিবারিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের ধারায় সাহিত্যে নতুন কিছু দিতে।

বিজ্ঞাপন

কবি আশিরব্রত চৌধুরী বলেন, অমিতাভ পালের জ্ঞানের নানা শাখা ছিলো। সেখান থেকে তিনি কবিতায়, গল্পে, প্রবন্ধে, কণ্ঠে সুষমা ছড়িয়েছেন।

অমিতাভ পালকে ভবিষ্যৎ পাঠের জন্য স্মারকগ্রন্থ প্রকাশের বিষয়ে জোর দেন কবি শামসুল ফয়েজ, কবি ফরিদ আহমদ দুলাল, কবি সেলিম মাহমুদ।

গেল বুধবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান অমিতাভ পাল। তার জন্ম ১৯৬২ সালের ৫ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ শহরে। তার বাবা আশুতোষ পাল এবং মা শিউলী পাল। কৃষি বিজ্ঞানে স্নাতক এই কবি পরিবেশসম্মত কৃষিতে বিশেষজ্ঞতা অর্জন করেন সুইডেন থেকে।

বেশকিছু কবিতার বই সহ আছে একাধিক গল্পের বই। উল্লেখযোগ্য বইগুলোর মধ্যে আছে গণবেদনার গাথা, অ্যাপসগুলি, পুননির্বাচিত আমি, রাতপঞ্জি।

চ্যানেল আই সহ বেশকিছু মিডিয়া হাউসে কাজ করেছেন অমিতাভ পাল। সর্বশেষ তিনি একাত্তর টেলিভিশনের যুগ্ম বার্তা সম্পাদক পদে দায়িত্বরত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন