চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও দুর্নীতির মতো কালব্যাধি থেকে দেশকে মুক্ত করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও দুর্নীতির মতো কালব্যাধি থেকে দেশকে মুক্ত করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সবাইকে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার সকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি দেশে কালব্যাধির মতো ছেয়ে আছে। এর গোড়াপত্তন ’৭৫-এর পরের শক্তি করেছে। জঙ্গিবাদ সৃষ্টিতে ওই সময়কার সরকারের প্রচ্ছন্ন সমর্থন ছিল বলে মন্তব্য করেন তিনি।

‘সমাজকে এই কালব্যাধি থেকে মুক্ত করতে হবে। সেই লক্ষ্য অর্জনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সবাইকে কাজ করতে হবে। জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, দুর্নীতির মতো কালব্যাধি থেকে দেশকে মুক্ত করতে হবে,’ বলেন শেখ হাসিনা।

এসব নিয়ন্ত্রণে করণীয় সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে রাখতেই হবে। যারা এই কঠিন কাজ সম্পন্ন করছেন, তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। মাদকের খারাপ দিকগুলো সমাজে বেশি বেশি প্রচারের মাধ্যমে এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’

দুর্নীতি নির্মূলের সুবিধার্থে উপজেলা পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তাদের আবাসন সংকট নিরসন করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের লোকবল অনুযায়ী যানবাহন, জলযান ও পরিবহন সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোকে অবশ্যই পরিকল্পনা মাফিক চাহিদাপত্র প্রণয়ন করতে হবে৷

তিনি বলেন, ‘মানুষকে নিরাপদ জীবন দেয়াই আমাদের লক্ষ্য। মনে রাখতে হবে, অবশ্যই সমাজ থেকে দুর্নীতি দূর করতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের অর্থনীতির আকার যতো বাড়ছে, ততই বাড়ছে রাস্তায় যানবাহনের সংখ্যা। ট্রাফিক সমস্যা এখন বড় সমস্যা। দুর্ঘটনার জন্য চালকের পাশাপাশি, পথচারী ও নাগরিকরাও দায়ী। জীবনের ঝুঁকি নিয়েও মানুষ কেন অস্বাভাবিক আচরণ করে, আমি তা বুঝি না।’

যানজট নিরসনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আরো কার্যকর ভূমিকা রাখতে নির্দেশ দেন তিনি।

‘দেশকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য রয়েছে। উন্নয়ন প্রকল্পগুলো যাতে যথাযথভাবে বাস্তবায়ন হয়, সেজন্য আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ সার্বিক নিরাপত্তা বজায় রাখতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কার্যকর ভূমিকা গ্রহণ করতে হবে৷’

মানুষের জীবনের জানমাল নিরাপত্তাসহ সার্বিকভাবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ধরে রাখতে হবে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।