চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জঙ্গিবাদী বই পড়ে হামলায় আগ্রহী হয় ফয়জুর

কারাবন্দী জঙ্গি নেতা জসিম উদ্দিন রাহমানীর বইপত্রে উদ্বুদ্ধ হয়েই ড. জাফর ইকবালের উপর হামলা চালায় ফয়জুর। তবে সে রাহমানীর সংগঠন বা অন্য কোন জঙ্গি গোষ্ঠীর নির্দেশে হামলা চালিয়েছে কিনা, তা এখনও জানতে পারেনি গোয়েন্দারা।

জানা যায়, সিলেটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের ঠিক যে জায়গায় সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন ড. জাফর ইকবাল, সেখানে গিয়ে সম্ভাব্য বিভিন্ন আলামত তন্ন তন্ন করে খুঁজেছে ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট।

ঘটনায় জড়িত সন্দেহে অন্তত ৬ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন ছায়া তদন্তে থাকা সিটিটিসিইউ সদস্যরা। সিটিটিসি প্রধান জানিয়েছেন, কারো উস্কানিতে ফয়জুর হামলা চালিয়েছে কিনা জানার চেষ্টা চলছে।

কয়েক বছর আগে আহলে হাদিসের অনুসারী হবার পর পরিবারের সঙ্গে ফয়জুরের সম্পর্কের অবনতি হয় বলেও গোয়েন্দারা জানতে পেরেছেন।

বিজ্ঞাপন

আদালতের অনুমতি নিয়ে ফয়জুরকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। কিছুটা সুস্থ হলে তাকে নিবিড় জিজ্ঞাসাবাদ করবেন গোয়েন্দারা।

গত শনিবার নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের একটি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান চলাকালে হামলার শিকার হন দেহরক্ষী বেষ্টিত কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবাল। তার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়।

আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। ৬টার পরপরই তাকে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়। পরে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার সিএমএইচ-এ স্থানান্তর করা হয়।

বর্তমানে তিনি শঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছে চিকিৎসকরা। একই কথা জানিয়েছেন হামলার শিকার ড. জাফর ইকবালের স্ত্রী ড. ইয়াসমিন হক।

ওই হামলার ঘটনায় ফয়জুল নামের এক যুবককে হাতেনাতে আটক করে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা।

বিজ্ঞাপন