চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দিনব্যাপী সংগীত উৎসব

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সংগীত বিভাগের উদ্যোগে দুই দিনব্যাপী ‘তৃতীয় সংগীত উৎসব-২০১৯’ শুরু হয়েছে।  

বিশ্ববিদ্যালয়টির বিজ্ঞান ভবন চত্বরের এ সংগীতানুষ্ঠানে দেশি বিদেশি বরেণ্য শিল্পীদের সংগীত পরিবেশনাসহ জবি ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের পরিবেশনা, নৃত্যনাট্য, সেমিনার ও সম্মাননা আয়োজন রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান ভবন চত্বরে উৎসবের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাস, ট্রেজারার অধ্যাপক সেলিম ভূঁইয়া এবং ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিলীপ কুমার আগারওয়াল।

উদ্বোধনী পর্বে সংগীত বিভাগের চেয়ারম্যান ও সংগীত উৎসব কমিটির আহ্বায়ক অণিমা রায়ের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগীত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আলী এফএম রেজোয়ান।

ছিল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের পরিবেশনা। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে সংগীত পরিবেশন করেন রথীন্দ্রনাথ রায়, খায়রুল আনাম শাকিল, ফেরদৌস আরা, তপন চৌধুরী, অদিতি মহসীন, অভিজিত কু (ধ্রুপদ), সরকারি সংগীত মহাবিদ্যালয়, জীমন কার্সপেল (ভিউলা, জার্মানি) এবং সংগীত বিভাগ, জবির ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষক। সংগীত বিভাগের বিশেষ নিবেদন ছিল রবীন্দ্র নৃত্যনাট্য ‘চিত্রাঙ্গদা’।

বিজ্ঞাপন

সংগীত উৎসবের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বিজ্ঞান ভবন চত্বরেই আবার উৎসব শুরু হয় সংগীত বিষয়ক সেমিনারের মাধ্যমে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের অধ্যাপক ড. অসিত রায়। এছাড়াও আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহ এর সাবেক অধ্যাপক ড. আবাম নুরুল আনোয়ার এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী ও রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী মিতা হককে সম্মাননা দেওয়া হবে। এরপর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের ছাত্রছাত্রীর অংশগ্রহণে সংগীত পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়।

সবশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন দেশ বরেণ্য শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, সুবীর নন্দী, কিরণ চন্দ্র রায়, লাইসা আহমেদ লিসা, মোহাম্মদ শোয়েব, রাজরূপা চৌধুরী (সরোদ), স্বাগতা মুখার্জী (শাস্ত্রীয় সংগীত, ভারত), সুপ্রিয়া দাশ (শাস্ত্রীয় সংগীত), বিট্টু নৃত্যগোষ্ঠী (ভারত), শুষেণ রায় (তবলা)।

এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃত্যকলা বিভাগ এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের পরিবেশনার মাধ্যমে এবারের উৎসব শেষ হয়।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের চেয়ারম্যান অণিমা রায় এবং উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান এর ঐকান্তিক প্রচেষ্টার তৃতীয়বারের মত এই সংগীত উৎসবের সফল আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়।

এবারের উৎসবের কমিউনিকেশন পার্টনার টেলিপ্রেস, মিডিয়া পার্টনার দীপ্ত টিভি এবং বিশেষ পৃষ্ঠপোষকতায় সংষ্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, ভারতীয় হাই কমিশন-ঢাকা, বেঙ্গল ফাউন্ডেশন এবং ইয়ামাহা।

Bellow Post-Green View