চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ছোটদের বিশ্বকাপ আয়োজনে আলো ছড়ালেন সুপার সাঙ্গা

আগামী দিনের ক্রিকেটার বিকাশের মঞ্চ হিসাবে পরিচিত আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু হচ্ছে আগামী ২৭ জানুয়ারি। বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় এবারের আসরে অংশ নিচ্ছে ১৬ দেশ। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সাউথ আফ্রিকা ও আয়োজক বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে ছোটদের বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ।

১৯৮৮ সালে অস্ট্রেলিয়ায় শুরু অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পথ চলা। ছোটদের বিশ্বকাপ খেলেই ক্রিকেট দুনিয়ার সঙ্গে সখ্যতার শুরু ব্রায়ান লারা, ইনজামাম, সাঙ্গাকারা, কোহলি, যুবরাজ কিংবা বাংলাদেশের আশরাফুল, সাকিব, মুশফিকুরের মতো এ সময়ের ক্রিকেট সেনসেশনদের।

২০০৪ সালে প্রথম। এক যুগ পর আবারো অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আয়োজক লাল-সবুজ। ১৬ দল, ১৯ দিন ও ৪৮ ম্যাচের ছোটদের ওয়ানডে বিশ্বকাপের আয়োজক বাংলাদেশের চার শহর ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও কক্সবাজারের আট ভেন্যু।

ট্রফি উন্মোচন ও গ্রুপিং-ফিকশ্চার প্রকাশের অনুষ্ঠানে বিসিবি সভাপতি ও আইসিসি কর্মকর্তাদের সমাবেশে আলো ছড়ালেন শ্রীলংকান গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারা, সঙ্গে ‘টিম-টাইগার্সের’ দুই উঠতি তারকা তাসকিন ও মুস্তাফিজ। তিনজনেই অনূর্ধ্ব-১৯ দিয়েই পা রেখেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আঙ্গিনায়।

বিজ্ঞাপন

ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারা’র কণ্ঠে বাংলাদেশের টাইগারদের দরাজ প্রশংসা। তিনি বলেন, ক্রিকেট এবং ক্রিকেটারদের প্রতি বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা আমি বরাবরই উপভোগ করি। গত দেড় বছর ধরে দেখছি বাংলাদেশ দল বিশেষ করে ওডিআই ক্রিকেটে পৃথিবীর সেরা দলগুলোকে একের পর এক হারিয়ে দিচ্ছে। বোধ হয় এ জন্যই শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরের প্রসঙ্গটি আলোচনায় আসলেই শ্রীলংকান ক্রিকেট বোর্ড দ্রুতই বলে ওঠে, না..না এখনই সফরের দরকার নেই।

বাংলাদেশের জার্সিতে ২০১২’র বিশ্বকাপ আসরে খেলা তাসকিনের কন্ঠে ছোটদের বিশ্বকাপ আসরের প্রস্তুতি। ২০১৪’র আসরের অন্যতম জুনিয়র টাইগার মুস্তাফিজ আশাবাদী এবার ফাইনাল খেলবে তার একসময়ের টিমমেটরা।

এ প্রসঙ্গে তাসকিন বলেন, ২০১২’র অস্ট্রেলিয়া অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ আসরে আমি, এনামুল, সৌম্য, এনামুল, লিটন কুমার এক সঙ্গে খেলেছিলাম। সেবারের অভিজ্ঞতা ২০১৫’র ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলার সময় আমাদের বিভিন্নভাবে দারুণ কাজে লেগেছে।

প্রাথমিক রাউন্ডে ‘এ’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিদ্বন্দ্বী সাউথ আফ্রিকা, স্কটল্যান্ড ও নামিবিয়া। গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচ ছাড়াও আছে প্রাক-টুর্নামেন্ট ওয়ার্ম-আপস ও প্লেট পর্ব। ১৪ ফেব্রুয়ারি মিরপুরের হোম অফ ক্রিকেটে ফাইনাল। তবে বাংলাদেশে নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তোলা অস্ট্রেলিয়ার অংশগ্রহণ নিয়ে আছে শঙ্কা ।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ইতিহাসে এবারই সর্বাধিক ২০টি ম্যাচ সারা ক্রিকেট দুনিয়ায় সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

বিজ্ঞাপন