চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ছুটির দিনেও ৪ জেলার সড়কে গেল ৭ জনের প্রাণ

দিনাজপুর, টাঙ্গাইল, ঝিনাইদহ, পাবনায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

এরমধ্যে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মোটর সাইকেল ও ট্রলির সংঘর্ষে মোটর সাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও একজন।

বিজ্ঞাপন

দিনাজপুরের পার্বতীপুর-মধ্যপাড়া সড়কের ভাগলপুর নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

পার্বর্তীপুর থানার ওসি মোকলেসুর রহমমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পার্বতীপুর-মধ্যপাড়া সড়কের ভাগলপুর নামক স্থানে মোটরসাইকেল ও ট্রলির মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সুভজিৎ (২০) নামে একজন ঘটনাস্থলে মারা যায়। আহত প্রীতম(৩০)কে রংপুর মেডিকেলে নেয়ার পথে মারা যায়। নিহত প্রীতম কুড়িগ্রাম মার্কেন্টাইল ব্যাংকে কর্মরত ছিল। আহত অনিক নামে আরেকজন রংপুর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। মোটরসাইকেল আরোহীরা মধ্যপাড়া থেকে ফুলবাড়িতে আসার সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে। তাদের বাড়ি দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার কাটাবাড়ি গ্রামে। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

টাঙ্গাইলে বেলা তিনটার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের সদর উপজেলার করটিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ দু’জন নিহত হয়েছে। তবে নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি। এ ঘটনায় আহত হয় পিকআপ ভ্যান চালক। তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কামাল হোসেন জানান, আজ বেলা তিনটার দিকে বিকল হওয়া একটি পিকআপ ভ্যান ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের করটিয়া এলাকায় দাঁড়িয়ে ছিল। এসময় উত্তরাঞ্চলগামী একটি ট্রাক পিকআপটিকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দেয়। এতে পিকআপ ভ্যানে থাকা শিশুসহ দু’জন ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আহত হয় পিকআপ চালক। তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে ঝিনাইদহে ট্রাক চাপায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছে আরও একজন। আজ সকালে শহরের হামদহ ঘোষপাড়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার প্রতিবাদে দুর্ঘটনাস্থলে গতিরোধক দেওয়ার দাবীতে সড়ক অবরোধ করেছে এলাকাবাসী।

পুলিশ জানায়, সকালে সদর উপজেলার নারিকেলবাড়ীয়া গ্রামের রিপ্তি নামের এক নারী চাচাতো ভাইয়ের মোটর সাইকেল যোগে শহর থেকে গ্রামে ফিরছিল। পথে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কের ঘোষপাড়া নামক স্থানে পৌঁছালে যশোর থেকে কুষ্টিয়াগামী ভুট্টা বোঝায় একটি ট্রাক মোটর সাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটর সাইকেল থেকে ওই নারী রাস্তায় ছিটকে পড়লে ট্রাকটি তাকে চাপা দেয়। এতে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। আহত হয় মোটর সাইকেল চালক আলমগীর হোসেন। তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ওই স্থানে গতিরোধক দেওয়ার দাবীতে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়ক অবরোধ করে এলাকাবাসী। পরে পুলিশের আশ্বাসে ১ ঘণ্টা পর অবরোধ তুলে নেয় তারা।

এছাড়াও পাবনা-সুজানগর আঞ্চলিক সড়কের আতাইকুলা থানার দুবলিয়ায় ট্রাক ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে ২ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ৩ জন।

শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। হতাহতরা সবাই অটোরিকশার যাত্রী। নিহতরা হলেন-সুজানগর পৌর সদরের বাসিন্দা আব্দুল বারেকের স্ত্রী আরিফা সুলতানা (৪৫) ও একই এলাকার মনা কুন্ডুর ছেলে ঝন্টু কুন্ডু (৬০)।

আহতরা হলেন- আব্দুল কাদের (৫৫), তার স্ত্রী রওশন আরা রেনু (৪৫) ও নিহত আরিফা সুলতানার স্বামী আব্দুল বারেক (৫৫)। তাদের সবার বাড়ি সুজানগরে। তাদের পাবনা জেনারেল হাসপাতাল ও সুজানগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, সকালে একটি ট্রাক পাবনা থেকে সুজানগরের দিকে যাচ্ছিল। সুজানগর থেকে যাত্রীবাহী সিএনজিচালিত অটোরিকশা পাবনায় যাবার পথে আতাইকুলার দুবলিয়া বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে ঘন কুয়াশার কারণে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ঝন্টু কুন্ডু নিহত হয়। আহত চারজনকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক আরিফা সুলতানাকে মৃত ঘোষণা করেন।