চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চ্যানেল আইয়ের মুকুটে টানা তৃতীয়বার সেরা ‘সুপারব্র্যান্ড’র গৌরব

দেশীয় আরো ১৩টি প্রতিষ্ঠানকে সুপারব্র্যান্ডের স্বীকৃতি

লন্ডনভিত্তিক আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ‘সুপারব্র্যান্ডস-এর বিবেচনায় তৃতীয়বারের মতো সেরা ব্র্যান্ডের গৌরব অর্জন করলো দেশের প্রথম ডিজিটাল টেলিভিশন চ্যানেল, চ্যানেল আই।

করোনার মহামারিকালে ভাচুর্য়াল গালা ইভেন্টে গ্রাহকদের গুণগত পণ্য ও সেবা দিয়ে নিজেদের আস্থা সমুজ্জ্বল করা দু’বছরের জন্য সুপারব্র্যান্ডস স্বীকৃতি পায় দেশের ১৪টি প্রতিষ্ঠান।

বিজ্ঞাপন

বিনোদন ও সংবাদের ক্ষেত্রে নির্ভরযোগ্যতা, আস্থা ও বস্তুনিষ্ঠতার কারণে চ্যানেল আই তৃতীয়বারের মতো সুপারব্র্যান্ডের মর্যাদা পেয়েছে আর মিডিয়া হাউজ হিসেবে সুপারব্র্যান্ডস হয়েছে ‘দ্য ডেইলি স্টার’।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, ‘আমি সকল সুপারব্র্যান্ড বিজয়ীদের অভিনন্দন জানাতে চাই। এই স্বীকৃতি সমস্ত কর্মীদের কঠোর পরিশ্রমের প্রতিচ্ছবি। সুপারব্র্যান্ডপ্রাপ্ত সকল প্রতিষ্ঠানের জন্য এটি তাদের কর্মীদের প্রতি স্বীকৃতি। আজ আমাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য এবং আমার বক্তব্য উপস্থাপন করার সুযোগ দেওয়ার জন্য আমি বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামকে ধন্যবাদ জানাই।’

বিজ্ঞাপন

সুপারব্র্যান্ডস বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শরিফুল ইসলাম বলেন, “একটি গুণমান সম্পন্ন ব্র্যান্ড তার পণ্য ও পরিষেবা এবং স্পর্শনীয় ও অস্পর্শনীয় উভয় দৃষ্টিকোণ থেকে একটি নির্দিষ্ট সময়ের ভিত্তিতে বিশ্বাস গরে তুলে, যে বিশ্বাস অবিচ্ছিন্ন সময়কালে নির্মিত হয়; যা একটি সুপারব্র্যান্ড তৈরি করে।’’

একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সুপারব্র্যান্ডস নির্বাচিত হয় যা বিভিন্ন স্বতন্ত্র ব্যাকগ্রাউন্ড এবং স্বেচ্ছাসেবী বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে গঠিত, যা “ব্র্যান্ড কাউন্সিল” হিসাবে পরিচিত। বাংলাদেশের ২০২০-২০২১ সালের সুপারব্র্যান্ডগুলি বিশিষ্ট বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে একটি ব্র্যান্ড কাউন্সিল দ্বারা নির্বাচিত হয়েছে।

অন্যান্য যেসব প্রতিষ্ঠান দু’বছরের জন্য সুপারব্র্যান্ডসের স্বীকৃতি পেয়েছে সেগুলো হলো এসিআই, গ্রামীণফোন, ওয়ালটন, আইপিডিসি, ইপিলিয়ন গ্রুপ, বসুন্ধরা গ্রুপের তিনটি ব্র্যান্ড, মেঘনা গ্রুপের ফ্রেশ ব্যান্ড, রহিম আফরোজ, বেক্সিমকো, শান্তা, প্রাইড, রূপচাঁদা ও শাহ সিমেন্ট।

এছাড়াও গণমাধ্যম ক্যাটাগরিতে আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন (বিবিসি), নিউ ইর্য়ক টাইমস ও ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক।