চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চ্যানেল অাই অনলাইনের যাত্রা শুরু

যাত্রা শুরু করলো চ্যানেল আই অনলাইন। সোমবার বিকেলে চ্যানেল অাই ভবনে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে চ্যানেল আই অনলাইনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস গ্রুপ ডিরেক্টর এবং নিউজ অ্যান্ড কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের ডেপুটি ডিরেক্টর ফ্রান আনসওয়ার্থ।

সেসময় বিবিসির ওয়ার্ল্ড সার্ভিসের কন্ট্রোলার অব ল্যাঙ্গুয়েজেস লিলিয়ান ল্যান্ডার, বিবিসি মিডিয়া অ্যাকশনের ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট চ্যারিটির এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ক্যারোলিন নার্সে, বিবিসি বাংলার প্রধান সাবির মুস্তাফা, চ্যানেল আই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, নির্বাহী পরিচালক ইসরারুল হক, নিউজ অ্যান্ড কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স এডিটর সাইফুল আমিন এবং চ্যানেল আই অনলাইনের এডিটর জাহিদ নেওয়াজ খান উপস্থিত ছিলেন।

চ্যানেল আই নিউজের ওয়েব পোর্টাল উদ্বোধন করে বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস গ্রুপের পরিচালক ফ্রান আনসওয়ার্থ বলেন, পুরো বিশ্বই এখন অনলাইনমুখি। ঠিক সময়েই তার নিউজ পোর্টাল চালু করলো চ্যানেল অাই।

তিনি বলেন, গণমাধ্যম হিসেবে সারা পৃথিবীর বাংলাভাষাভাষীর মাঝে চ্যানেল আই তার অবস্থান গড়েছে বস্তুনিষ্ঠ তথ্য ও কারিগরি উৎকর্ষ দিয়ে। কয়েকজন উদ্যমী ও পেশাদার মানুষের নেতৃত্ব, পরিকল্পনা ও মেধার সাক্ষর রয়েছে চ্যানেল আই এর প্রতিটি কাজের মধ্যে। আশা করি চ্যানেল আই অনলাইন খুব দ্রুতই তার কাঙ্খিত ও উদ্দিষ্ট পাঠকের কাছে পৌঁছতে সক্ষম হবে।

চ্যানেল অাই এবং এর অনলাইন সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস গ্রুপের ডিরেক্টর বলেন, একদিকে টেলিভিশন চ্যানেল আর অন্যদিকে অনলাইন। টেলিভিশন দিয়ে যেমন চ্যানেল আই তার অনলাইনের জন্য পাঠক তৈরি করতে পারবে, তেমনই অনলাইন দিয়ে দর্শকও বাড়াতে পারবে আরো।

চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান চ্যানেল আইয়ের নতুন এ উদ্যোগ সম্পর্কে বলেন, আমরা যদি বিশ্ব প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশকে বিচার-বিশ্লেষণ করি, তা হলে দেখবো ভৌগলিক অবস্থান এবং অর্থনৈতিক অগ্রগতির যাত্রায় বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় অবস্থান করছে। স্বাধীনতার পর গত ৪৪ বছরে অর্থনীতিসহ নানা ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অর্জন অনেক। এক্ষেত্রে অবাধ তথ্যপ্রবাহ এবং গণমাধ্যমের ভূমিকা ছিলো বিশাল।

বাংলাদেশের গণমাধ্যম বাংলাদেশের অগ্রগতিতে আরো ভূমিকা রাখতে পারে উল্লেখ করে শাইখ সিরাজ বলেন, অবাধ তথ্যপ্রবাহ আর প্রযুক্তির অগ্রগতির পথ ধরে মানুষের কাছে পৌঁছানোর বড় এক মাধ্যম এখন অনলাইন। দেশের প্রাতিষ্ঠানিক উন্নয়ন এবং গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে আগামী দিনে অনলাইন যে ভূমিকা রাখতে পারে তাতে মাইলফলক হতে পারে চ্যানেল অাই অনলাইন।

চ্যানেল অাই’র নিউজ অ্যান্ড কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স এডিটর সাইফুল অামিন বলেন, আমি বিশ্বাস করি অনলাইন কর্মীদের কর্মদক্ষতা, পোশাদারিত্ব এবং পুরো নিউজরুমের সহযোগিতায় চ্যানেল আই  অনলাইন দাঁড়িয়ে যেতে বেশি সময় নেবে না।

চ্যানেল অাই অনলাইনের এডিটর জাহিদ নেওয়াজ খান বলেন, আমাদের লক্ষ্য দ্রুততম সময়ে সংবাদ পৌঁছে দেওয়া, কিন্তু তথ্য হবে সঠিক। আমরা মানুষকে বিস্তারিত জানাবো, কিন্তু সেখানে কোনো বাহুল্য থাকবে না। আমরা সংবাদ বিশ্লেষণে যাবো, কিন্তু সেটা হবে তথ্যের ভিত্তিতে নিরপেক্ষ অবস্থান থেকে। আমরা ঘটনার গভীরে যাবো, কিন্তু সবার উপরে থাকবে সাংবাদিকতার নীতি-নৈতিকতা।