চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চোখের পানিতে অ্যাটলেটিকোয় সুয়ারেজ

বুধবার শেষবারের মতো বার্সেলোনার ট্রেনিং গ্রাউন্ডে গিয়েছিলেন লুইস সুয়ারেজ। উদ্দেশ্য সহজ-সরল, বার্সা সতীর্থদের আনুষ্ঠানিক বিদায় বলা। বিদায় বলে যখন গাড়ি চেপে দ্রুত বেড়িয়ে আসছেন, এক ভক্তের চিৎকার, ‘তুমি নাকি অ্যাটলেটিকোতে যাচ্ছ? সত্যি? কেন?’

সুয়ারেজ সেই চিৎকার শুনেছেন কিনা কে জানে। গাড়িতে বসা উরুগুয়ে তারকার ছবি যখন ফ্রেমবন্দি হল, সুয়ারেজ দ্রুতলয়ে বেড়িয়ে গেলেন। তার আগেই অবশ্য কাঙ্ক্ষিত ছবিটা তোলা হয়ে গেছে। ৩৩ বছর বয়সী ফরোয়ার্ডের থমথমে, ছলছলে চোখ বলে দিচ্ছিল- ‘বিদায়, বার্সা!’

বিজ্ঞাপন

সেই ভক্তের শঙ্কা সত্যি করে সুয়ারেজ আসলেই যোগ দিয়েছেন বার্সেলোনার অন্যতম বড় প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে।

বিজ্ঞাপন

বার্সার সঙ্গে ছয় বছরের দারুণ এক সম্পর্ক শেষ করে মাদ্রিদে গিয়ে উঠেছেন সুয়ারেজ, আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দিয়েছে অ্যাটলেটিকোও। শুরুতে বিনা ট্রান্সফার ফিতে আনার কথা থাকলেও উরুগুয়ে ফরোয়ার্ডের জন্য ৬ মিলিয়ন ইউরো খরচ করছে ডিয়েগো সিমিওনের দল। চুক্তি দুই বছরের। প্রতি বছরে কর কেটে রেখে সিমিওনের অধীনে ৯০ লাখ ইউরো করে পাবেন তিনি।

সুয়ারেজ যে নতুন মৌসুমে বার্সার হয়ে নামছেন না, সেটা রোনাল্ড কোম্যান কোচ হয়ে আসার পরই স্পষ্ট হয়ে গেছে। ডাচ কোচ এসেই বুড়োদের তাড়ানোর ব্যবস্থা করেছেন। এরইমধ্যে ইভান রাকিটিচ সেভিয়ায় চলে গেছেন, আর্তুরো ভিদাল গেছেন ইন্টার মিলানে। নেলসন সেমেদোওকে ৩৫ মিলিয়নে উলভসে বিক্রি করা হয়েছে, শুধু বাকি ছিলেন সুয়ারেজ।

বিজ্ঞাপন

কোম্যান কোচ হয়ে আসার পর সুয়ারেজ জুভেন্টাসে যেতে পারেন এমন জল্পনা বেশি হয়েছে। একপর্যায়ে দুপক্ষ সমঝোতাতেও এসেছিল। ইতালিয়ান ভাষা পরীক্ষা, বার্সার গড়িমসিতে আর রোনালদোর সঙ্গী হওয়া হয়নি সুয়ারেজের।

পরে সুয়ারেজকে দলে পেতে প্রস্তাব জানায় অ্যাটলেটিকো। আলভারো মোরাতাকে এক মৌসুমের জন্য ধারে জুভেন্টাসে খেলতে পাঠানোর পর মূল স্ট্রাইকারের সহকারীর জায়গা খালিই ছিল রোজাব্লাঙ্কোদের।

সুয়ারেজ অ্যাটলেটিকোতে যেতে পারেন এমন কথা শোনার পর বেঁকে যেতে বসেছিলেন বার্সা সভাপতি জোসেপ মারিয়া। ক্লাব ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ স্ট্রাইকারকে অন্যতম বড় প্রতিপক্ষের হাতে তুলে দিয়ে তাদের আরও শক্তিশালী করতে চাননি বার্তেমেউ। ২০১৩ সালে এমনই এক ভুল করেছিল কাতালান ক্লাবটি, মাত্র ২১ লাখ ইউরোয় অ্যাটলেটিকোর হাতে তুলে দেয় স্পেনের সর্বোচ্চ গোলদাতা ডেভিড ভিয়াকে। মূল স্ট্রাইকার না হয়েও সেবার ৪৭ ম্যাচে ১৫ গোলের পাশাপাশি ৫ গোল করান ভিয়া। অ্যাটলেটিকো জিতে নেয় লা লিগা।

সুয়ারেজ যেন অ্যাটলেটিকোতে না যেতে পারেন সেজন্য ১০ মিলিয়ন ইউরো চেয়েছিলেন বার্তেমেউ। অন্যদিকে রোজাব্লাঙ্কোরা জানিয়ে দেয় তারা বাড়তি একটি ইউরোও খরচ করতে রাজি নয়। শেষ পর্যন্ত তাদের ৬ মিলিয়ন খরচ করতেই হল।

বার্সার হয়ে মাত্র ছয় মৌসুমে ১৯৮ গোল করে দলটির তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতাকে পেয়ে বেশ বড় এক দাওই মেরেছে অ্যাটলেটিকো। আয়াক্স, লিভারপুল ও বার্সার হয়ে গড়ে প্রতি মৌসুমে ২৯ গোল করা স্ট্রাইকারকে পাওয়া মানে অন্তত বাড়তি ২০-২৫ গোলের নিশ্চয়তা পাওয়া। গত মৌসুমে চোটের জন্য বার্সার হয়ে বেশ কিছু ম্যাচ খেলতে পারেননি। তবুও ২১ গোল করেছেন। আর পুরোপুরি সুস্থ সুয়ারেজ কি করতে পারেন সেটা সবদলেরই জানা। এমন এক স্ট্রাইকারে এক প্রকার বিনামূল্যে দলে টেনে নতুন মৌসুমে বেশ শক্তি বাড়াল ডিয়েগো সিমিওনের দল।