চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চীনা ভ্যাকসিন জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

করোনা মহামারিতে জরুরি ব্যবহারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমতি পেয়েছে চীনের সিনোফার্ম এর ভ্যাকসিন।

শুক্রবার এ ভ্যাকসিনটি তালিকাভুক্ত করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সংস্থাটি বলছে, মহামারিতে দরিদ্র দেশের ভ্যাকসিন পাওয়ার সহজলভ্যতায় এটি সাহায্য করবে।   

নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, অনুমোদনের ফলে সিনোফার্মার ভ্যাকসিনকে কোভাক্সে অন্তর্ভুক্ত করা যাবে। ফলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশ্বব্যাপী উদ্যোগ যা বিশ্বজুড়ে ন্যায়সঙ্গত ভ্যাকসিন বিতরণে সহায়ক হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর আগে ফাইজার-বায়োএনটেক, মডার্না, জনসন অ্যান্ড জনসন ও অ্যাস্ট্রাজেনকার উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনকে জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সংস্থাটির প্রধান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, শুক্রবার দুপুরে ডব্লিউএইচও সিনোফার্ম এর ভ্যাকসিনকে জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে। ফলে এখন পর্যন্ত সংস্থার নিরাপত্তা, কার্যকারিতা ও মানের নিরিখে ছয়টি ভ্যাকসিন অনুমোদন পেলো।

তিনি আরও বলেন, টিকাকরণের বিষয়ে স্ট্র্যাটেজিক অ্যাডভাইজরি গ্রুপ অব এক্সপার্ট প্রাপ্ত তথ্য পর্যালোচনা করেছেন। তারা সুপারিশ করেছেন ১৮ বছর ঊর্ধ্বের বয়সীদের দুই ডোজ প্রয়োগ করা যাবে।

ইতোমধ্যে ধনী দেশগুলো করোনা ভ্যাকসিনের ডোজ সংগ্রহ করছে। ভারত করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী দেশের মধ্যে অন্যতম। তবে দেশটিতে করোনা শনাক্ত ও মৃত্যু বেড়ে যাওয়ায় টিকা রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। 

কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে কিছু দেশ অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকার ডোজ সরবরাহ স্থগিত করেছে।

খবরে বলা হয়েছে, আগামী সপ্তাহে চীনের আরেকটি ওষুধ কোম্পানি সিনোভ্যাকের করোনা টিকা অনুমোদনের বিষয়ে বিবেচনা করবে।

বিজ্ঞাপন