চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গ্র্যান্ড প্রাইজ জিতে নিলো রাশিয়ার ছবি

তবু ইতিহাসের পাতায় থাকবে 'রেহানা মরিয়ম নূর'

কানে ‘আনসার্টেন রিগার্ড’ বিভাগে গ্র্যান্ড প্রাইজ জিতে নিয়েছে রাশিয়ার সিনেমা ‘আনক্লেনসিং দ্য ফিস্টস’

বাংলাদেশের সিনেমা হিসেবে প্রথমবার কান চলচ্চিত্র উৎসবের অফিশিয়াল সিলেকশনে জায়গা করে নিয়েই ইতিহাস সৃষ্টি করেছে আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। পুরস্কার প্রাপ্তির সম্ভাবনাও দেখেছিলেন সিনেসমালোচকরা। তবে মরিয়ম নয়, ‘আনসার্টেন রিগার্ড’ [ভিন্ন দৃষ্টিকোণ] বিভাগের সেরা ছবি জিতে নিয়েছে রাশিয়ার “আনক্লেনসিং দ্য ফিস্টস”।

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১১টায় কানের ডুবসি থিয়েটারে ‘আনসার্টেন রিগার্ড’ বিভাগের পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। যেখানে জানানো হয়, এ বিভাগের সেরা ছবি ও নির্মাতা কিরা কোভালেঙ্কোর নাম।

বিজ্ঞাপন

“আনক্লেনসিং দ্য ফিস্টস’ এর একটি দৃশ্য

গ্র্যান্ড প্রাইজ ছাড়াও এ বিভাগে জুরি প্রাইজ জিতে নেয় অস্ট্রিয়ার নির্মাতা সেবাস্তিয়ান মিজের ‘গ্রেট ফ্রিডম’, এনসেম্বল প্রাইজ জিতে নেয় ফরাসী অভিনেত্রী, লেখক ও নির্মাতা হাফসিয়া হের্জির ‘গুড মাদার’, প্রাইজ অব কারেজ জিতে নিয়েছে টেওডোরা মিহাইয়ের ‘লা সিভিল’, ভ্লাদিমির জোহানসনের ‘ল্যাম্ব’ জিতে নিয়েছে ‘প্রাইজ অব ওরিজিনালিটি’ এবং স্পেশাল মেশন জিতে নিয়েছে তাতিয়ানা হুজোর ‘প্রেয়ারস ফর দ্য স্টোলেন’।

গত ৭ জুলাই কানের ডুবসি থিয়েটারে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এর উদ্বোধনী প্রদর্শনীর পর আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো বাংলাদেশের এই সিনেমাটির যেভাবে প্রশংসা করেছে, তাতে শুধু সিনেমা সংশ্লিষ্টরাই নয়- আট হাজার কিলোমিটার দূর থেকে ছবিটি নিয়ে আশাবাদী ছিলেন বাংলাদেশের সিনেমাপ্রেমীরাও।

রেহানা মরিয়ম নূরের একটি দৃশ্যে বাঁধন

তবে পুরস্কার না জিতলেও কানের মতো পৃথিবীর অন্যতম চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের সিনেমাকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কৃতিত্বকে বড় করে দেখছেন দেশের সিনেমাপ্রেমীরা। পুরস্কার ঘোষণার আগে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এর কেন্দ্রীয় চরিত্র আজমেরী হক বাঁধনের সুরেও এমনটাই শোনা গেছে।

এদিন দুপুরে তিনি এক ভিডিও বার্তায় জানান, আমার হাত-পা ঠাণ্ডা হয়ে আসছে। জানি না কী আছে ভাগ্যে। তবে পুরস্কার না পেলেও আমার আক্ষেপ নেই। কারণ, এ পর্যন্ত যা যা পেয়েছি তার সবটুকুই আশাতীত ছিল। আবারও বলছি, পুরস্কারটি না পেলেও আমাদের দুঃখ নেই। কারণ, আমরা সবার যে ভালোবাসা পেয়েছি সেটা কোনো আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির মাধ্যমে মিলবে না।’

‘আনসার্টেন রিগার্ড’ বিভাগে বিচারকদের সভাপতি হিসেবে ছিলেন ব্রিটিশ নির্মাতা অ্যান্দ্রেয়া আর্নল্ড। বিচারক দলে আরও ছিলেন মার্কিন নির্মাতা মাইকেল কোভিনো, ফরাসী অভিনেতা এলসা জিলবারস্টেইন। আর্জেন্টিনার নির্মাতা ড্যানিয়েল বারম্যান এবং আলজেরিয়ান নির্মাতা মউনিয়া মেডৌর।

‘আনসার্টেন রিগার্ড’ (ফরাসি উচ্চারণে: আঁ সার্তেইন রিগার্দ) কান চলচ্চিত্র উৎসবের অফিশিয়াল সিলেকশনের একটি বিভাগ। উৎসব কমিটির সভাপতি গিলেস জ্যাকব ১৯৭৮ সালে এই বিভাগটির সাথে সিনেমাপ্রেমীদের পরিচয় করিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন