চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গ্রেফতার হলেন বাংলা সিরিয়ালের জনপ্রিয় তারকা বিক্রম

ভারতের বাংলা সিরিয়াল ও চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় তারকা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। জানা গেছে, কসবার অ্যাক্রোপলিস মলের সামনে থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ তাকে গ্রেফতার করা হয়। আজ শুক্রবার দুপুরে তাকে আলিপুর আদালতে হাজির করা হবে।

অনেক দিন থেকেই পুলিশের খাতায় পলাতক ছিলেন বিক্রম। পুলিশ জানিয়েছিল, খোঁজ চলছে। বিক্রমের বিরুদ্ধে তাদের হাতে জোরালো তথ্যপ্রমাণ আছে বলেও দাবি পুলিশের। বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সূত্রে পুলিশ জানতে পারে, কসবায় এক বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন বিক্রম। এরপর সেখানে বিক্রমের জন্য অপেক্ষা করে কলকাতা পুলিশের বিশেষ দল।

বিজ্ঞাপন

গত ২৯ এপ্রিল বিক্রম চট্টোপাধ্যায় গাড়ি দুর্ঘটনায় মারাত্মক আহত হন। গাড়িতে এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন জনপ্রিয় মডেল সোনিকা সিংহ চৌহান। ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। ভোর ৪টা নাগাদ দক্ষিণ কলকাতায় রাসবিহারী মোড়ের কাছে লেক মলের সামনে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

বিক্রম চট্টোপাধ্যায় ও সোনিকা
বিক্রম চট্টোপাধ্যায় ও সোনিকা সিংহ চৌহান

মডেল সোনিকা সিংহ চৌহানের মৃত্যুর পেছনে সেদিন গাড়ির স্টিয়ারিংয়ে থাকা বন্ধু বিক্রমের বেসামাল ও বেপরোয়া আচরণকে দায়ি করেছে পুলিশ। বিক্রমের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত ভাবে মৃত্যু ঘটানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। জানা গেছে, এরই মধ্যে আদালতে পুলিশের আবেদন গৃহীত হয়েছে। শেষ পর্যন্ত আদালতে অভিযোগ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন সাজা হতে পারে বিক্রমের।

আদালতে পুলিশের দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বিক্রম দুর্ঘটনার আগে দু’টি পানশালায় দফায় দফায় মদ্যপান করেন। ফরেনসিক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ওই রাতে বিক্রমের গাড়ির গতি একবারও ৯০-এর নিচে নামেনি। এক সময়ে তা ১১৫ পর্যন্ত উঠেছিল। দুর্ঘটনার ঠিক সাড়ে চার সেকেন্ড আগে গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১০৫ কিলোমিটার। দুই সেকেন্ড আগে ছিল ঘণ্টায় ৯৩ কিলোমিটার। দুর্ঘটনাটি ঘটার দেড় সেকেন্ড আগেও ব্রেক কষেননি বিক্রম। যেহেতু সামনের দিকে ধাক্কা লাগেনি, তাই গাড়ির এয়ারব্যাগও খোলেনি। বিক্রমের সিটবেল্ট বাঁধা থাকলেও সোনিকার ছিল না।

এই ঘটনার পর অনেকটা তাড়াহুড়ো করে স্টার জলসায় শেষ হয়েছে বিক্রম চট্টোপাধ্যায় অভিনীত জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘ইচ্ছে নদী’। ডেকান ক্রনিকল, টাইমস অব ইন্ডিয়া।

Bellow Post-Green View