চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গ্যাস সিলিন্ডার কেড়ে নেবে আর কত প্রাণ?

রাজধানীর মিরপুরের রূপনগরে বেলুনে গ্যাস ভরার সময় বুধবার সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৬ শিশু মারা যায়, ওইদিন আহত হয় আরো কয়েকজন শিশু। তাদের মধ্যে থেকে আরেক শিশুর মৃত্যু হয়েছে বৃহস্পতিবার। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৭টি তাজা প্রাণ ঝরে গেছে। বেলুনে গ্যাস ভরার সিলিন্ডার বিস্ফোরণে বছরের পর বছর নানা ঘটনা ঘটছে। কয়েকমাস আগে রাজধানীর একটি স্কুলে বার্ষিক ক্রিড়া প্রতিযোগিতায় এ ধরণের আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল।

বিশেষজ্ঞদের মতে, নিরাপদ হিলিয়ামের পরিবর্তে ‘নিষিদ্ধ’ হাইড্রোজেন ব্যবহারের কারণে এসব দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। যেসব সিলিন্ডার ব্যবহার করে বেলুন ফুলানো হয়ে থাকে, সেগুলো আসলে সিলিন্ডার নয়, গ্যাস প্রডিউসিং রিয়েক্টর। গ্যাস সিলিন্ডারকে মডিফাই করে সিলিন্ডারের ভেতরেই হাইড্রোজেন গ্যাস তৈরি করার পদ্ধতি বানিয়েছে। সিলিন্ডারের ভেতরে কস্টিক সোডা ও অ্যালুমিনিয়াম পাউডার দিয়ে হাইড্রোজেন গ্যাস তৈরি করতে থাকে। এর সাহায্যে বেলুন ফোলাতে থাকে। এরমধ্যে কিছুক্ষণ ফোলানোর পরে কোনও কাস্টমার না থাকলে সাধারণত সিলিন্ডারের নবটি বন্ধ করে রাখে। এই সময়ের মধ্যে হাইড্রোজেন গ্যাস তৈরি হতে থাকে। এতে সিলিন্ডারের ওপর গ্যাসের চাপ বাড়তে থাকে। আর তাতে ভেতরে ক্ষয় হতে থাকে। এক পর্যায়ে গ্যাসের চাপ বেশি বেড়ে গেলে সিলিন্ডারটি গরম হয়ে নরম হয়ে যায়। এই অবস্থা যখন আবার বেলুনে গ্যাস ভরার জন্য নব খোলা হয়, তখনই বিস্ফোরণ ঘটে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এসব ঘটনায় কোমলমতি শিশুরাই বেশি প্রাণ হারায়, বেলুন শিশুদের খুবই প্রিয় একটি বিনোদন উপকরণ হওয়ায় তারা ওইসব অনিরাপদ সিলিন্ডার ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকে। উন্নত বিশ্বে হাইড্রোজেন দিয়ে বেলুন ফোলানো বন্ধ হয়েছে ২০০ বছরের আগে। হিলিয়াম আবিষ্কারের পর নিরাপদ এই গ্যাস দিয়েই তারা বেলুন ফোলায়। কিন্তু আমাদের দেশে এখনও এই প্রক্রিয়া বন্ধ হয়নি। বিষয়টি খুবই চিন্তার।

বিনোদনের উপকরণ বেলুন ফোলাতে নিরাপদ গ্যাস বা গ্যাস সিলিন্ডার সরাসরি ব্যবহারে কোনো অসুবিধা নেই, কিন্তু গ্যাস রিয়াক্ট্যার যেন ব্যবহার না হয়। এ ধরনের দুর্ঘটনায় আর কোনো শিশুসহ কারো প্রাণ যেন ঝরে না যায়, এ বিষয়ে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সচেতন হয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে বলে আমরা মনে করি।

Bellow Post-Green View