চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গোপালগঞ্জে ২ মাস পর স্কুল ছাত্রী উদ্ধার

অপহরণের প্রায় ২ মাস পর গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার স্কুল ছাত্রী শংকরীকে বাগেরহাটের চিতলমারীর ডুমরিয়া গ্রাম থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সহোদর ২ ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া থেকে অপহৃত স্কুল ছাত্রী শংকরী গুপ্ত (১৪) কে ১ মাস ২৭ দিন পর বাগেরহাট জেলার চিতলমারী থানার ডুমরিয়া গ্রাম থেকে উদ্ধার করেছে কোটালীপাড়া থানা পুলিশ।  ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে সহোদর ২ ভাইকে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানিয়েছে, আটক দিপংকর খাঁ (২২) ও শুভংকর খাঁ (২০) ’র বাড়ি বাগেরহাটের চিতলমারী থানার ডুমরিয়া গ্রামে। তারা ওই গ্রামের ঠাকুর দাস খাঁর ছেলে।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে স্কুল ছাত্রী শংকরী গুপ্তের ভাই তপন গুপ্ত বাদী হয়ে দিপংকর খাঁ ও শুভংকর খাঁর নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামী করে কোটালীপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ২০০০ সালের সংশোধনী আইনে ২০০৩ এর ৭/৩০ অপহরণ / সহায়তা ধারায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং ৫.তাং ১০-০৭-১৯ইং।

মামলার বরাত দিয়ে কোটালীপাড়া থানার ওসি মো, জাকারিয়া সাংবাদিকদের বলেছেন, গত মে মাসের প্রথম সপ্তাহে এ মামলার আসামী দিপংকর কোটালীপাড়ায় তার আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। এ সময় পরিচয় হয় স্কুল ছাত্রী শংকরীর সাথে। এরপর আদান প্রদান করা হয় মোবাইল নাম্বার। ৩/৪ দিন পর দিপংকর বিয়ের প্রস্তাব দিলে শংকরীর বাবা ময়াল গুপ্ত প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।

এরপর গত ১৩ মে সকাল ১১ টা ১০ মিনিটের সময় দিপংকর ও শুভংকরসহ অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জন যুবক বৈকন্ঠপুর পঞ্চপল্লি উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তা থেকে শংকরীকে অপহরন করে নিয়ে যায়। বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের সদস্যরা তাকে খুঁজতে থাকে। পঞ্চপল্লি উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্রী ছিল শংকরী।

মামলা দায়েরের ৫ ঘণ্টার মধ্যে চিতলমারী থানা পুলিশের সহায়তায় শংকরীকে উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার করা হয় এ মামলার আসামী সহোদর ২ ভাই দিপংকর ও শুভংকরকে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।