চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গৃহবধূকে বিবস্ত্র করা সেই দেলোয়ারের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও ধর্ষণ মামলায় প্রধান আসামি দেলোয়ার হোসেন দেলু ও তার সহযোগী মোহাম্মদ আলী ওরফে আবুল কালামকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

এছাড়াও দুজনকেই ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং তা অনাদায়ে আরো ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।

জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জয়নাল আবেদীন ওই রায় ঘোষণা করেন।

মামলায় রাষ্ট্র পক্ষের কৌঁসুলী (পিপি) অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ লাবলু এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, চলতি বছরের ১৭ই ফেব্রুয়ারি মামলার দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। মাত্র ১৩ কার্যদিবসে বাদীপক্ষের ১২ জন ও আসামিপক্ষের তিনজনসহ মোট ১৫ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়।

সারাদেশে সাড়া ফেলে দেয় সেই ঘটনা। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে ভিডিওচিত্র ধারণ করে বখাটে একদল যুবক।

বিজ্ঞাপন

ঘটনার একমাস পর ২০২০ সালের ৪ অক্টোবর রোববার দুপুরের দিকে সেই নির্যাতনের সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশের পর ভাইরাল হয়। তাতে টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের।

এর আগে ৩২ দিন অভিযুক্ত স্থানীয় বখাটেরা গৃহবধূর পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখলেও ঘটনা থেকে যায় স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে!

স্থানীয়রা জানায়, ওই বছরের ২ সেপ্টেম্বর উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় ৯ জনকে আসামি করে দুটি মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতা নারী। একটি মামলা করা হয় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে। আরেকটি পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে।

দুটি মামলাতেই প্রথম আসামি বাদল (২২)।  মামলা দুটির অন্য আসামিরা হলো, রহিম (২০), আবুল কালাম (২২), ইস্রাফিল হোসেন মিয়া (২২), সাজু (২১), সামছুউদ্দিন সুমন (৩৯), আব্দুর রব চৌধুরী মিয়া লম্বা চৌধুরী (৪৮), আরিফ (১৮) ও রহমত উল্যা (৪১)।

এছাড়াও এই ঘটনার পেছনে ইন্ধনদাতা হিসেবে দেলোয়ার নামে আরেকজনকে নারায়ণগঞ্জ থেকে আটক করে র‌্যাব।

বিজ্ঞাপন