চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গুড়িয়া ধর্ষণকাণ্ডে দুই ব্যক্তিকে দোষী করলো দিল্লির আদালত

নির্ভয়া ধর্ষণকাণ্ডে ৪ জনকে ফাঁসির আদেশ শোনানোর পর এবার গুড়িয়া ধর্ষণকাণ্ডে দু’জনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে দিল্লির একটি আদালত। দোষী এ ব্যাক্তিরা কি শাস্তির সম্মুখীন হতে যাচ্ছে, তা জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত।

২০১৩ সালের গুড়িয়া ধর্ষণকাণ্ডের পর নড়েচড়ে ওঠে পুরো ভারত। যৌন নিগ্রহের শিকার পাঁচ বছরের ওই শিশু’র অবস্থা এতোটাই বিপর্যস্থ ছিলো যে, পরপর ছয়বার অস্ত্রপচার প্রয়োজন হয়েছিলো শিশুটির।

বিজ্ঞাপন

দুই অভিযুক্ত হলেন: মনোজ শাহ ও প্রদীপ।  তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পর দিল্লির কারকারডোমা আদালতের বিচারক তার রায়ে বলেন: আমাদের সমাজে শিশুকন্যাদের দেবীজ্ঞানে পূজো করা হয়। পাঁচ বছরের মেয়ের উপর যে বর্বরোচিত নির্যাতন চালানো হয়েছিল তার কোনও ক্ষমাই হয় না। ঘটনার বীভৎসতা সব সীমাকেই ছাড়িয়ে গিয়েছিল।

নির্ভয়া গণধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের আগে এ ঘটনায় উত্তাল ছিল ভারত।  ২০১৩ সালে পাঁচ বছরের ছোট্ট শিশু ‘গুড়িয়া’কে অপহরণ করে নৃশংস নির্যাতন চালায় তার দুই প্রতিবেশী। শরীরের মধ্যে ঢুকিয়ে দেওয়া হয় তেলের শিশি, মোমবাতি। ধর্ষণের পরে রক্তাক্ত অবস্থায় ছোট্ট মেয়েটাকে ঘরে তালাবন্ধ করে পালিয়ে যায় দু’জন।

৪০ ঘণ্টা পরে যখন গুড়িয়াকে যখন উদ্ধার করা হয় তখন তার অবস্থা ছিল সঙ্কটজনক।  দীর্ঘ কয়েক মাসের চিকিৎসায় ধীরে ধীরে সুস্থ হয় সে। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন ছ’টা অস্ত্রোপচার করতে হয়েছিল ছোট্ট শরীরে।

বিজ্ঞাপন