চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গুরুপাক খাবার খাওয়া যাবে না সেহরিতে

ইফতার করার পেট ভরা থাকে বলে অনেকেই আর রাতের বেলা ভাত না খেয়ে একবারে সেহরিতে খান। ফলে ভাজাপোড়া খাবারের পাশাপাশি পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার সুযোগ থাকে শুধুমাত্র সেহরিতে। কিন্তু এই সেহরিতেও যদি গুরুপাক খাবার খাওয়া হয়, তাহলে শরীরে নানা ধরণের সমস্যা হতে পারে।

সেহরিতে অনেক রেস্তোরাঁও খোলা থাকে এখন। অনেকেই পরিবার-পরিজন নিয়ে এসব রেস্তোরাঁয় মশলাদার মাংস, বিরিয়ানি বা কাচ্চি খেতে যান। তৈলাক্ত এই খাবারগুলো সেহরিতে খেলে সকাল থেকেই বুক জ্বালা-পোড়া শুরু হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাছাড়া সেহরি খেয়েই কিছুক্ষণ পর ঘুমিয়ে পড়া হয়, আবার নির্দিষ্ট সময়ের পরে পানি খাওয়ার সুযোগও নেই, তাই হজমেও সমস্যা দেখা দিতে পারে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সেহরিতে কেমন খাওয়ার খাওয়া উচিত সেই প্রসঙ্গে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. এম এ মান্নানসহ চ্যানেল আই অনলাইনকে জানিয়েছেন, ‘সেহরিতে গুরুপাক খাবার খাওয়া যাবেনা। সহজপাচ্য খাবার খেতে হবে। কম তেল ও কম মশলার খাবার খাওয়া উচিত সেহরিতে। আর খাবার খেতে হবে শেষ সময়ে এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে। অনেক আগে খেয়ে ঘুমিয়ে পড়া উচিত নয়। এতে দীর্ঘ বিরতি পড়ে সেহরি ও ইফতারের মাঝে।’

সেহরিতে সবজি, মাছ, মাংস রাখুন। এছাড়াও ডাল রাখুন। তেলে ভানে, ঝাল বা অতিরিক্ত মশলাদার খাবার এড়িয়ে চলুন। পর্যাপ্ত পানি পান করুন। সেহরিতে অতিরিক্ত পানি পান করলে অস্বস্তি লাগতে পারে। তাই ইফতার এর পর থেকে সেহরি পর্যন্ত দেড় থেকে দুই লিটার পানি পান করা উচিত।

Bellow Post-Green View