চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গার্মেন্টস নিয়ে বৈঠকে বসছে আন্তর্জাতিক কমপ্যাক্ট

গার্মেন্টস খাতের কর্মপরিবেশ ও শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে বাংলাদেশে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে বৈঠক করতে যাচ্ছে রানা প্লাজা ধসের পর গঠিত আন্তর্জাতিক কমপ্যাক্ট। রপ্তানিকারকরা বলছেন, তিন বছরে শ্রম আইন পরিবর্তন, কারখানাগুলোর ভবন ও অগ্নি নিরাপত্তা এবং শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত করার চলমান অগ্রগতিকে তুলে ধরবেন তারা।

তিন বছর আগে রানা প্লাজা ধসের পর দেশের গার্মেন্টস কারখানাগুলো শ্রম বান্ধব করতে বাংলাদেশ, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এবং আইএলওর সমন্বয়ে গঠিত হয় সাসটেইনেবল কমপ্যাক্ট।

ট্রেড ইউনিয়ন, কারখানার ভবন ও অগ্নি নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য সচেতনতা এবং এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত সব পক্ষের দায়িত্বশীল আচরণ নিশ্চিত করাই ছিলো কমপ্যাক্টের উদ্দেশ্য।

Advertisement

গত তিন বছরে বাংলাদেশের শ্রম আইন সংশোধন হয়েছে দুবার। পাশাপাশি বিদেশী দুই জোট অ্যাকর্ড এবং অ্যালায়েন্স তিন হাজার ছয়শ ৬০টি কারখানা পরিদর্শন করেছে।

তবে প্রথম থেকেই নিটওয়্যার গার্মেন্টসের এসোসিয়েশন বিকেএমইএ গার্মেন্টস কারখানা পরিদর্শনের নামে বিদেশীদের খবরদারির বিপক্ষে। এসোসিয়েশনের সভাপতির দাবি, কম মূল্যে ও সস্তা শ্রমে কাপড় কিনতে পারে বলেই বায়াররা বাংলাদেশে। চলমান অগ্রগতির পর আর কোনো অভিযোগ থাকার কথা নয়।

শ্রম মান ও ট্রেড ইউনিয়ন নিয়ে বিদেশীদের চাহিদা পূরণ করা হলেও কম দাম দিয়ে রপ্তানি পোশাক কেনার চেষ্টায় কমপ্যাক্টের তৃতীয় শর্ত ফেয়ার প্রাইস নিশ্চিত হয়নি দাবি উদ্যোক্তাদের।