চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গার্দিওলা ‘কাপুরুষ ও গৃহপালিত’!

তীর্যক ও কটুকথার জন্য কুখ্যাতি আছে ফুটবলের সুপার এজেন্টখ্যাত মিনো রাইওলার। তার ঝাঁঝালো কথার উত্তাপ কিছুটা হলেও টের পাচ্ছেন পেপ গার্দিওলা। ম্যানচেস্টার সিটি কোচকে কথার তোড়ে ধুয়ে দিয়েছেন রোনালদো-ইব্রাহিমোভিচের ফুটবল এজেন্ট।

কেন গার্দিওলাকে কটুকথা বললেন রাইওলা? কারণটা জানতে ফিরে যেতে হবে ২০১১ সালে। ২০১০ সালে বার্সেলোনার দল-বদলের রেকর্ড গড়ে দলটিতে নাম লেখান জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। কিন্তু গার্দিওলার দলে নিয়মিত একাদশে সুযোগ না পেয়ে এক মৌসুম পরেই এসি মিলানে পাড়ি জমান সুইডিশ ফরোয়ার্ড।

স্বপ্নের ক্লাব থেকে এভাবে বের হয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে লিওনেল মেসি ও গার্দিওলাকেই দায়ী করেন ইব্রাহিমোভিচ। প্রাধান্য নষ্ট হবে, এ শঙ্কায় নাকি তাকে দলেই চাইতেন না আর্জেন্টাইন মহাতারকা। আর সে চাওয়ায় সায় ছিল গার্দিওলার। তাই বার্সা ছেড়ে গার্দিওলাকে ভীরু-কাপুরুষ বলতে দ্বিধা করেননি ইব্রাহিমোভিচ।

বিজ্ঞাপন

ইব্রাহিমোভিচের এজেন্ট রাইওলাও বিষয়টি ভুলে যাননি। ২০১১ সালে ওয়েম্বলিতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে ইব্রাকে ডাগআউটে বসিয়ে রাখায় গার্দিওলার প্রতি আলাদা ক্ষোভ পুষে রেখেছিলেন রাইওলা। সাত বছর পর ঘটল সেই ক্ষোভেরই বিস্ফোরণ।

ব্রিটিশ পত্রিকা ডেইলি মিররকে দেয়া সাক্ষাৎকারে গার্দিওলার প্রতি ক্ষোভের সেই ঝাল ঝেড়েছেন রাইওলা, ‘গার্দিওলা কোচ হিসেবে অসাধারণ। কিন্তু ব্যক্তি হিসেবে একদম শূন্য। সে ভীরু ও কুকুর।’

‘যদি ম্যানসিটি এবার প্রিমিয়ার লিগ জেতে তাহলে আর একবার তার দাম বাড়বে। কিন্তু আমি তাকে ঘৃণাই করে যাবো।’

বিজ্ঞাপন