চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘গাঙচিল’র আইটেম গানে তারিক আনাম-পূর্ণিমা-রাশেদ অপু

প্রায় শেষের দিকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা উপন্যাস ‘গাঙচিল’ অবলম্বনে নির্মিত সিনেমার শুটিং। গত দুদিন ধরে এফডিসির ৯ নম্বর ফ্লোরে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল পরিচালিত এ সিনেমার আইটেম গানের শুটিং চলছে। যেখানে অংশ নিয়েছেন বর্ষিয়ান অভিনেতা তারিক আনাম খান, চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা, রাশেদ অপুসহ অনেকে।

এর আগে ‘এক কাপ চা’ বানিয়েছিলেন নেয়ামূল। পরিচালক জানান, আইটেম গানের শুটিং শেষ হচ্ছে আজ (রবিবার)। গানটি সিনেমায় ভিন্নমাত্রা যোগ করবে বলে তার বিশ্বাস। তারিক আনাম খান, পূর্ণিমা ও রাশেদ অপুর সঙ্গে আইটেম গানে পারফর্ম করছেন পুনম। কোরিওগ্রাফি করছে ঈগলস ডান্স কোম্পানি।

বিজ্ঞাপন

পরিচালক নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামূল চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, রুনা লায়লা ম্যাডামের বিখ্যাত গান ‘রূপে আমার আগুন জ্বলে’র প্রথম চারলাইন আইটেম গানে ব্যবহার করা হয়েছে। গানটির বাকি অংশ লিখেছেন কবির বকুল এবং সুর সংগীত করেছেন ইবরার টিপু। গানে কণ্ঠ দেবেন ইন্ডিয়ান নামী শিল্পী। গত দুদিন ধরে এফডিসিতে গানটির শুটিং চলছে।

‘গাঙচিল’ সিনেমার আরও একটি গানের শুটিং বাকি। খুব দ্রুত বাকি অংশের কাজ শেষ করা হবে বলে জানান টিভি নাটকের নামী এ নির্মাতা। আইটেম গানের শুটিং থেকে অভিনেতা রাশেদ অপু বলেন, খুব এনার্জি নিয়ে শুটিং করছি। চমৎকার আয়োজন। আমার বিশ্বাস, পর্দায় দর্শক গানটি দেখে উপভোগ করবেন। আইটেম গান হলেও এটি গতানুগতিক নয়। বেশ উপভোগ্য।

‘গাঙচিল’ সিনেমায় আরও অভিনয় করছেন ফেরদৌস, আনিসুর রহমান মিলন। বেশিরভাগ শুটিং হয়েছে নোয়াখালীতে।  ছবির অন্য একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন কোনাল। চিত্রনাট্য লিখেছেন, মারুফ রেহমান ও কলকাতার প্রিয় চট্টোপাধ্যায়।

‘গাঙচিল’ উপন্যাসটি নিয়ে ওবায়দুল কাদের আগেই জানিয়েছেন, এটি কোন কাল্পনিক গল্প নয়। নোয়াখালীর একটি চর ‘গাঙচিল’কে উপজীব্য করে পুরো উপন্যাসটি লেখা হয়েছে। ওখানকার মানুষের জীবনের নানা বিষয় ‘গাঙচিল’ উপন্যাসে উঠে এসেছে। ওই এলাকার মানুষকে যেভাবে ঝড়, বন্যা আর জলোচ্ছ্বাসের সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে থাকতে হয়, সেসব সংগ্রামই উপন্যাসে উঠে এসেছে। ২০১৫ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় সময় প্রকাশন থেকে প্রকাশিত হয়েছিল ‘গাঙচিল’।