চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গর্বের একুশে বর্ণিল আয়োজন

গর্বের একুশ স্লোগানে চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন পালিত হয়েছে বিশ্বজুড়ে। ঘড়ির কাঁটায় রাত বারোটা ১ মিনিট তেজগাঁওয়ে নিজস্ব ভবনে চ্যানেল আইয়ের একুশ বছর পদার্পণের প্রথম প্রহর থেকে শুরু হয় আনন্দের বন্যা।

এই আয়োজনে অংশ নেন চ্যানেল আইয়ের পরিচালনা পর্ষদ এবং তাদের পরিবারের সদস্যসহ দেশের বিশিষ্ট নাগরিকরা। সকলের প্রত্যাশা অতীতের মতো আগামী দিনেও চ্যানেল আই তার সৃষ্টিশীল অগ্রযাত্রায় ভূমিকা রেখে যাবে।

বিজ্ঞাপন

সকালে ফুল দিয়ে চ্যানেল আইয়ের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি বর্ষপূর্তি উদযাপনের অংশ হিসেবে চ্যানেল আইয়ের চেতনা চত্বরে শুরু হয় জমজমাট আয়োজন।কেক কেটে দিনব্যাপী বর্ণিল আয়োজনে জন্মদিন উদযাপন করা হয়। তেজগাঁওয়ে চ্যানেল আইয়ের নিজস্ব ভবনে কেক কাটা পর্বে সমাজের বরেণ্যজন এবং শুভানুধ্যায়ীরা অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে চ্যানেল আইয়ের পরিচালনা পর্ষদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন আবদুর রশিদ মজুমদার, জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুন, ফরিদুর রেজা সাগর, মুকিত মজুমদার বাবু, রিয়াজ আহমেদ খান, রবিউল ইসলাম এবং শাইখ সিরাজ।

মূল মঞ্চে সারাদিন সাংস্কৃতিক আয়োজন চলে। দেশবরেণ্য বিভিন্ন শিল্পীরা সেখানে পারফর্ম করেন।সন্ধ্যায় মন্ত্রী, সাবেক মন্ত্রী, রাজনৈতিক নেতা, বুদ্ধিজীবী, ব্যবসায়ী, শিক্ষাবিদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সবাই মিলে জন্মদিনের কেক কাটেন।

জন্মদিনে চ্যানেল আইকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দেন রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আলাদা বাণী দেন। চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন উপলক্ষে দেশের শীর্ষ দৈনিক পত্রিকাগুলো বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করে।সারা দেশব্যাপী আনন্দ উদযাপনের মধ্য দিয়ে চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন পালিত হয়। বিশ্বের নানা প্রান্তে আনন্দ উদযাপনের মধ্য দিয়ে চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন পালিত হয়।

Bellow Post-Green View