চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গত বছর বৈদেশিক বিনিয়োগ কমেছে: আঙ্কটাড

বিনিয়োগ বোর্ডের হিসাবে বিনিয়োগ-অনুকূল পরিবেশ থাকলেও জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠান আঙ্কটাড-এর হিসাবে ২০১৪ সালে আগের বছরের তুলনায় কম বিনিয়োগ হয়েছে বাংলাদেশে। এ সময় বিদেশী বিনিয়োগ এসেছে ১১ হাজার ৮শ’৫৬ কোটি টাকা। যা গতবারের চেয়ে ৫শ’ ৪৬ কোটি টাকা কম। গড় হিসাবে এটি খুব বেশি কম নয় বলে মনে করছে বিনিয়োগ বোর্ড।

বিনিয়োগ বোর্ডের তথ্যে গত ৫ বছরের হিসাবে বাংলাদেশে বিদেশী বিনিয়োগ এসেছে গড়ে ১০ হাজার ৪৬ কোটি টাকা। সবচেয়ে বড় অংকের বিনিয়োগ এসেছিল ২০১৩ সালে। সেবছর বিনিয়োগ ছিলো ১২ হাজার ৪০২ কোটি টাকা। এক বছরে সেই বিদেশী বিনিয়োগ সাড়ে ৪ শতাংশ কমেছে। আঙ্কটাডের এই তথ্যে আশংকার কিছু নেই বলে মনে করছে বিনিয়োগ বোর্ড।

বিনিয়োগ বোর্ডেও চেয়ারম্যান এস এ সামাদ জানিয়েছেন, জিডিপি’র মাত্র ২ শতাংশ হচ্ছে বিদেশী বিনিয়োগ কিন্তু ২৪-২৫ শতাংশ দেশীয় বিনিয়োগ যা দেশের অর্থনীতিকে প্রতিনিধিত্ব করছে তা ৩২ শতাংশ পর্যন্ত নিয়ে যেতে জোর প্রচেষ্টা চলছে। আগের তুলনায় সুবিধাও বাড়ানো হয়েছে। আশা করা যায় বিনিয়োগ আরও বাড়বে।

বিজ্ঞাপন

আঙ্কটাড এর তথ্যে গতবারের মতো এবারও বাংলাদেশে এফডিআই বেড়েছে উৎপাদন খাতে। আগামীতে এ বিনিয়োগ আরও বাড়বে বলে তথ্য দিয়েছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ডক্টর তৌফিক ই এলাহী চৌধুরী বলেন, দেশে উৎপাদন খাতে বিদেশী বিনিয়োগ আসছে এবং বেশ বড় অংকের বিনিয়োগ হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বিদ্যুতখাতের সাম্প্রতিক বিনিয়োগ চিত্রের উদাহরণ টানেন। ৮বিলিয়ন ডলার এসেছে এবং আরও আসছে। এটাকে এই রিপোর্টে বিনিয়োগ হিসেবে দেখানো হয়নি আঙ্কটাড প্রতিবেদনে। যার সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা।

আঙ্কটাড এর রিপোর্টে বলা হয়েছে দক্ষিণ এশিয়ায় বিদেশী বিনিয়োগ বেড়েছে ১৬ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন