চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গণহত্যা দিবস: স্বীকৃতির পদক্ষেপ নিতে নাসিমের আহ্বান

গণহত্যা দিবসকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি জন্য পদক্ষেপ নিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি নিস্তেজ হলেও নিঃশেষ হয়ে যায়নি। দেশের প্রতি ইঞ্চি জমিতে তাদের চক্রান্ত প্রতিহত করা হবে। আর কোনো দিন তাদের ক্ষমতায় আসতে দেওয়া হবে না। 

সোমবার বিকালে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন

এর আগে মোহাম্মদ নাসিমের নেতৃত্বে ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালো রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বর্বর গণহত্যায় জীবনদানকারী শহীদদের স্মরণে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

১৪ দলের এ মুখপাত্র বলেন: বিএনপি-জামায়াত ও রাজাকারদের বিরুদ্ধে আন্দোলন এখনো শেষ হয়নি। এ আন্দোলন ধারাবাহিকভাবে করে যাবে ১৪ দল। বিএনপি-জামাত রাজাকাররা এখনো গণহত্যা দিবস মানে না।

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ১৪ দলের তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, গণতন্ত্রী পার্টির উদ্যোগে আগামী ২৮, ওয়ার্কার্স পার্টির উদ্যোগে ৩০ এবং গণআজাদী লীগের উদ্যোগে ৩১ মার্চ রাজধানীতে স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

বিজ্ঞাপন

‘‘সড়কে নৈরাজ্য, মাদক ও নারী-শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলবে ১৪ দল। এ লক্ষ্যে আগামী এপ্রিল মাস থেকে ১৪ দলের বিভিন্ন কর্মসূচি শুরু হবে। কারণ সড়কে নৈরাজ্য, মাদক ও নারী-শিশু নির্যাতনকারীরা একাত্তরের ঘাতকদের চেয়ে কোনো অংশে কম অপরাধী নয়।’’

তিনি বলেন: স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধেও চেতনা ভুলণ্ঠিত করেছেন। ৭২ এর সংবিধান ছিন্নভিন্ন করে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়েছেন।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেন: গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায় করতে হবে। এক্ষেত্রে সঠিকভাবে দাবি উত্থাপন করতে হবে।

জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, বিএনপি-জামায়াত পিছু হটলেও এখনো আত্মসমর্পণ করেনি। অতীতের কর্মকান্ডের জন্য তারা এখনো ক্ষমা চায়নি। এ কারণে আনন্দে ভাসা কিংবা স্বস্তির নিঃশ্বাস না ফেলে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দীলিপ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে জাসদ নেতা মাঈন উদ্দিন খান বাদল, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাৎ হোসেন, বাসদ নেতা রেজাউর রশিদ খান, গণ আজাদী লীগের এস কে শিকদার, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Bellow Post-Green View