চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

খুলনায় দিনব্যাপী নাট্যকর্মশালা

সম্প্রতি খুলনায় অনুষ্ঠিত হলো দিনব্যাপী কথা ও আড্ডায় নাট্যকর্মশালা। এটি আয়োজন করে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অন্যতম সাংস্কৃতিক সংগঠন বায়স্কোপ। আয়োজনের মধ্যমণি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা শহীদুল আলম সাচ্চু।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর শরীফ হাসান লিমন, ছাত্রবিষয়ক পরিচালক, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়।

আয়োজনটি মোট ৬টি পর্বে বিভক্ত ছিল। প্রথম পর্ব সকাল সাড়ে ৮টায় মিনিটে বেলুন উড়িয়ে এবং কেক কেটে এ অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ। এরপর সংগঠনের কর্মী-নাট্যামোদী-শুভানুধ্যায়ীর বিপুল অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য উদ্বোধনী র‌্যালি শেষে কালজয়ী মুজিব-বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে।

সকাল পৌনে ১০টায় চতুর্থ পর্ব শুভেচ্ছা-কথন শুরু হয় কবি জীবনানন্দ দাশ একাডেমিক ভবনের মাল্টিপারপাস কক্ষে। আলোচনাপর্বের সভাপতিত্ব করেন ড. তানভীর দুলাল (প্রধান উপদেষ্টা, বায়স্কোপ) সহযোগী অধ্যাপক, বাংলা ডিসিপ্লিন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়।

বিজ্ঞাপন

শুরুতে শহীদুল আলম সাচ্চুর সংক্ষিপ্ত জীবনপঞ্জি পাঠ করেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ মনসুর। এই অভিনেতাকে বায়স্কোপের পক্ষে উত্তরীয় পরিয়ে দেন বিশেষ অতিথি প্রফেসর শরীফ হাসান লিমন। নিজের আঁকা শুভেচ্ছা-ছাপচিত্র উপহার দেন সংগঠনের সভাপতি মো. তাহিদুল আলম রিফাত এবং বায়স্কোপের পক্ষে, সম্মাননা-স্মারক প্রদান করেন প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ। এসময় কর্মশালায় প্রায় শতাধিক নাট্যকর্মী ও নাট্যামোদী উপস্থিত ছিলেন।

পঞ্চম পর্ব, কথা ও আড্ডায় নাট্যকর্মশালা শুরু হয় সাড়ে ১০ টায়। এ পর্বটি আবার তিনটি পর্বে বিভক্ত ছিল। দুপুর ১টা থেকে ২টায় মধ্যাহ্ন-বিরতি এবং বিকেল ৫টায় চা-বিরতি ব্যতিত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত দিনব্যাপী নিরবচ্ছিন্নভাবে এ কর্মশালা চলে। সবশেষ পর্বে, অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণের মধ্য দিয়ে এ আয়োজনের সমাপ্তি ঘটে।

কর্মশালা শেষে শহীদুল আলম সাচ্চু বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়স্কোপের আয়োজনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা সন্দেহাতীতভাবে প্রতিভাবান এবং শিল্পে নিবেদিত। এদেরকে নিয়ে নাটক, পাঠ-অভিনয়, নাচ এবং চিত্রাঙ্কন মিলিয়ে বাঙালি ইতিহাস এবং ঐতিহ্যনির্ভর বড় একটি কোলাজ অনুষ্ঠান আয়োজন করা যেতে পারে। যেখানে দেশ-বিদেশের শিল্পিরাও যুক্ত হয়ে এটাকে আন্তর্জাতিকত পর্যায়ে উন্নীত করতে পারে।

সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ড. তানভীর দুলাল বলেন, শহীদুল আলম সাচ্চুর মতো এমন একজন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত কৃতী অভিনেতা ও ত্যাগী নাট্যকর্মীর সান্নিধ্য সংগঠনের কর্মীদের নাট্যজ্ঞানের বিকাশ ও বৃদ্ধির পাশাপাশি বহুকাল নাট্যপথে চলার প্রেরণা হয়ে থাকবে বলে আমার বিশ্বাস।

বিজ্ঞাপন