চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

সৌদি ক্রাউন প্রিন্সের শাস্তি দাবি করেছেন নিহত খাশোগি’র বাগদত্তা

Nagod
Bkash July

সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি (৫৯) হত্যায়ি জড়িতের অভিযোগে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে (এমবিএস) বিলম্ব না করে শাস্তির আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন খাশোগির তুর্কি বাগদত্তা। 

Reneta June

২০১৮ সালে তুরস্কের রাজধানী ইস্তাম্বুলে সৌদি আরব কনসুলেটে হত্যার শিকার হন খাশোগি। শুক্রবার বাইডেন প্রশাসন কর্তৃক প্রকাশিত গোয়েন্দা প্রতিবেদনে হত্যাকাণ্ডের জন্য হুকুমদাতা হিসেবে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে অভিযুক্ত করা হয়।

খাশোগির বাগদত্তা হাতিস সেন্টিগিস তার অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে এক টুইট বার্তায় লিখেছেন: ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান একজন নির্দোষ ব্যক্তিকে নির্মমভাবে হত্যার নির্দেশ দিয়েছেন। এখন সময় এসেছে দেরি না করে তাকে শাস্তির আওতায় আনার।

টুইট বার্তাটি হাতিস একই সঙ্গে আরবী এবং ইংরেজি ভাষায় পোস্ট করেন।

এরআগে, তুর্কি বাগদত্তাকে বিয়ে করার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ আনতে ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে গিয়েছিলেন ৫৯ বছর বয়সী খাশোগি। সেখানে তাকে আটকে রেখে ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে তাকে অতিরিক্ত পরিমাণ ওষুধ প্রয়োগ করা হয়। মারা যাওয়ার পর মৃতদেহ কেটে টুকরো টুকরো করে কনস্যুলেটের বাইরে স্থানীয় এক এজেন্টের কাছে দেওয়া হয়। কিন্তু খাশোগির দেহাবশেষ আর পাওয়া যায়নি।

তুরস্কের গোয়েন্দাদের হাতে পড়া খাশোগির হত্যাকারীদের কথোপকথনের অডিও রেকর্ডিংয়ে এই হত্যার রহস্য বেরিয়ে আসে। দুই বছর পর এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত প্রতিবেদন, শুক্রবার প্রকাশ করে বাইডেন প্রশাসন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নেওয়া খাশোগিকে আটক বা হত্যার একটি পরিকল্পনা অনুমোদন করেছিলেন যুবরাজ।

BSH
Bellow Post-Green View