চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

খাগড়াছড়িতে উন্নতজাতের তুলা চাষ

পাহাড়ের ঢালু জমিতে জুম চাষে ধানের সাথে উন্নতজাতের তুলা চাষ করেছেন জুম চাষীরা। দুই লাইন ধান আবাদ করে পরের সারিতে তুলার আবাদ করছেন তারা।

প্রতি বছর প্রায় ৫০ লাখ টন তুলা আমদানি করতে হয় বিদেশ থেকে। দেশে তুলার আমদানি কমাতে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে ও বাংলাদেশ তুলা উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় তিন পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানের পাহাড়ে উন্নতজাতের তুলা চাষের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

খাগড়াছড়ির কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের কৃষি বিশেষজ্ঞ তপন কান্তি চৌধুরী বলেন, তুলা এবং ধান অনেক বেশি ফলন হচ্ছে এবং বিশেষ করে আমেরিকান তুলার মতো একটা অর্থকরি ফলস পাহাড়ের তৃতীয় শ্রেণীর জমিতে চাষ করার যে ব্যবস্থা করা হচ্ছে ফলে কৃষকদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জেগেছে, আশা করি তারা এটা সাদরে গ্রহণ করবে।

তুলা উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী পরিচালক ফরিদ উদ্দিন বলেন, নতুন একটা প্রযুক্তি নিয়ে এসেছি সেটা হলো পাহাড়ের ঢালে দুই লাইন ঢাল এক লাইন তুলা এবং সার দিয়ে সঠিক ব্যবস্থাপনায় দেখা যাচ্ছে ফলন তিনগুণ হয়ে যাচ্ছে, ধান এক টন থেকে আড়াই থেকে তিন টন আর তুলা দুই’শ কেজির জায়গায় দেড় টন চাষাবাদ হচ্ছে।

তিন বছর ধরে তুলা চাষের পাইলট প্রকল্পে সাড়ে চারশ’ জুম চাষীকে ধানের সাথে আমেরিকান জাতের তুলা চাষের প্রযুক্তি দেয়া হচ্ছে ।

তুলা চাষীরা বলছেন ধানের সঙ্গে তূলা লাগানোয় ধান ও তুলা দুটোই পাওয়া যাচ্ছে। ফলে আমরা অনেক সুযোগ সুবিধা পাচ্ছি।

জুম চাষে সনাতন পদ্ধতিতে কার্পাস তুলা চাষ করে আগে বিঘা প্রতি দুশ’ কেজি ফলন হলেও আমেরিকান টেক্সটাইল জাতের তুলা উৎপন্ন হচ্ছে দেড় টন।