চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি মিয়ানমার সেনাপ্রধানের

শিগগিরই জাতীয় নির্বাচন দিয়ে বিজয়ী দলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মিয়ানমার সেনা প্রধান মিন অং হ্লাইং। নির্বাচনে কারচুপির কারণে দেশের বেসামরিক নেতাদের ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছে জানান তিনি।

সোমবার সরাসরি ভাষণ দেন সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং। এদিন গত বছরের নভেম্বরের অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচন নিয়ে জালিয়াতির অভিযোগ তোলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

যদিও এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে নির্বাচন কমিশন। সেনা শাসনের বিরুদ্ধে এবং সু চি’র মুক্তির দাবিতে টানা তৃতীয় দিনের মতো মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ করেছেন লাখো মানুষ। বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারির পাশাপাশি দুটি বড় নগরীতে রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেছে সামরিক সরকার।

জাতীয় নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে পয়লা ফেব্রুয়ারি ভোরে নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখলে নেয় মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। কিছুদিন যেতে না যেতেই বিক্ষোভ দানা বাঁধতে থাকে সেনা শাসকদের বিরুদ্ধে। স্টেট কাউন্সিলর অং সান সুচি’সহ সব রাজবন্দিদের মুক্তির দাবিতে সোমবার পর্যন্ত টানা তৃতীয় দিনের মতো লাখো মানুষ বিক্ষোভ করেন মিয়ানমারজুড়ে। পাশাপাশি অসহযোগ আন্দোলনের নামেন সরকারি বেসরকারি কর্মীরা।

বিজ্ঞাপন

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেয় মিয়ানমার সেনাবাহিনী। তাদের বিরুদ্ধে জল কামান ব্যবহার করে পুলিশ। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। তারপরও বিক্ষোভে ফেটে পড়েন সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আন্দোলনে উত্তপ্ত নগরী ইয়াঙ্গন এবং মান্দালয়ে রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করে সামরিক সরকার। সেখানে পাঁচজনের বেশি মানুষের জমায়েতেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

পরিস্থিতি শান্ত করতে সোমবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে প্রথম ভাষণ দেন মিয়ানমার সেনা প্রধান জেনারেল মিন অং লাইং। খুব শিগগিরই নতুন করে নির্বাচন দিয়ে বিজয়ী দলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন পুণর্গঠনের কথাও জানান সেনা প্রধান। দেশবাসীকে নির্বাচিত সরকার হঠানোর ব্যাখ্যাও দেন সেনা শাসক।

সেনা প্রধানের কথায় আশ্বস্ত হতে না পেরে বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন আন্দোলনকারীরা। স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু’চিসহ গ্রেফতার অন্যদের মুক্তি এবং গণতন্ত্র ফিরিয়ে না দেয়া পর্যন্ত তাদের এ আন্দোলন অব্যাহত রাখার কথা জানান তারা।