চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ক্রিকেট মাঠে পরিচয়, প্রেম, বিয়ে…

মাঠে তাদের পরিচয়। ফোন কল, মেসেঞ্জারে চলতে থাকে যোগাযোগ। বাড়তে থাকে ঘনিষ্ঠতা। ছয় বছর প্রেমের পর অবশেষে শুভ পরিণয়। বলছি বাংলাদেশ নারী দলের ক্রিকেটার সানজিদা ইসলাম ও রংপুর বিভাগীয় দলের ক্রিকেটার মীম মোসাদ্দেকের কথা। একই ভুবনের দুজন গাঁটছড়া বেধেছেন শনিবার। বসেছেন বিয়ের পিঁড়িতে।

২০১৪ সালে বিকেএসপি জীবন শেষে বাড়ি ফিরে রংপুর ক্রিকেট একাডেমিতে অনুশীলন শুরু করেন সানজিদা। সেখানেই নিয়মিত অনুশীলন করতেন মীম। পরিচয়টা তাদের ক্রিকেট মাঠেই। একজন আরেকজনকে ভালোভাবে বোঝার পর হয় মন দেয়া-নেয়া।

বিজ্ঞাপন

সম্পর্ককে বিয়ে পর্যন্ত টেনে নেয়া কঠিন হয়ে পড়েছিল। ক্রিকেটার মেয়ে বউ হিসেবে কেমন হবে, সেটি নিয়ে সংশয় ছিল মীমের বাবার। তার আপত্তি বাধার সৃষ্টি করলেও বিশ্বাস হারাননি তিনি। সানজিদাকে সামনাসামনি দেখে, কথা বলার পর বরফ গলে শ্বশুরের।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিয়ের পরও ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যেতে আপত্তি নেই কারোরই। চ্যানেল আই অনলাইনকে সানজিদা বলছিলেন, ‘আমার পরিবার ও মীমের পরিবার, সবাই চায় দেশের জন্য আমি ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যাই। আমার স্বামী বোঝে জাতীয় দলের একজন ক্রিকেটারের কতটা গুরুত্ব। সে সেই সম্মানটা সবসময়ই দেয়। সে নিজেই যেহেতু ক্রিকেটার, তার চেয়ে ভালো আর কে বুঝবে ব্যাপারটা।’

‘আমাদের প্রেমের সম্পর্কে অনেক বাধা এসেছিল। সব জয় করে আমরা এগিয়ে যেতে পেরেছি। সবাই দোয়া করবেন আমাদের জন্য। মীমের সঙ্গে আমার পরিচয় রংপুর ক্রিকেট একাডেমিতে। শুরুতে বন্ধুত্ব। ধীরে ধীরে আমাদের মাঝে সম্পর্ক গড়ে ওঠে।’

২৪ বছর বয়সী সানজিদা বাংলাদেশের টপঅর্ডার ব্যাটার। ওয়ানডে খেলেছেন ১৬টি, টি-টুয়েন্টি পঞ্চাশের অধিক (৫৪)। ২০১২ সাল থেকে বাংলাদেশকে বিশ্বমঞ্চে প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি।