চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনা পরীক্ষার ফল নেগেটিভ মানে কি আপনি নিরাপদ?

করোনার লক্ষণ দেখা দিলে প্রথমবার পরীক্ষার পরে যদি ফলাফল নেগেটিভ আসে, তারমানে এই নয় যে আপনি অন্যের দেহে সংক্রমণ ছড়িয়ে দিচ্ছেন না। অনেক সময় দেখা যায়, করোনার সব লক্ষণ শরীরে থাকা সত্ত্বেও ফলাফল নেগেটিভ আসে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রিপোর্ট ভুল দেওয়ার সম্ভাবনা যদিও অনেক কম, তবে এর সম্ভাবনা একেবারে ফেলে দেওয়া যায় না। এছাড়া ৩টি প্রধান কারণে করোনার লক্ষণ প্রকাশ পেলেও রিপোর্ট নেগেটিভ আসে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

আরটি-পিসিআর পরীক্ষা: 

কোভিড-১৯ রিপোর্ট যে কোনও মানুষের কাছেই খুব গুরুত্বের। করোনা আক্রন্ত কিনা, তা নির্ধারণের সঠিক পরীক্ষা হল আরটি-পিসিআর।(RT-PCR)। এই পরীক্ষার রিপোর্ট আসতে সময় লাগে ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টা। পরীক্ষাটি খরচ সাপেক্ষও।

অনেকেই এই পরীক্ষার বদলে অ্যান্টিজেন টেস্ট করাচ্ছেন। আর অ্যান্টিজেন টেস্টে শরীরে যে কোনও ভাইরাস থাকলেই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ফলে অনেক ক্ষেত্রে তাকে নেগিটিভ হিসেবেই ধরা হচ্ছে। এই পরীক্ষা কিন্তু ততটাও বিশ্বাসযোগ্য নয়। অ্যান্টিজেন পরীক্ষাতে ফলস নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে, তা প্রমাণিত। তাই রিপোর্ট নেগেটিভ মানেই আপনি সেফ নন। আপনার থেকে যাতে বাকিরা সংক্রমিত না হন সেই কারণেই আপনার সাবধানতা মেনে চলা উচিত।

টেস্টের সময়সীমা:

করোনাভাইরাস দেহে ৫ থেকে ১২ দিন পর্যন্ত থাকতে পারে। কিংবা তার থেকে বেশি সময়ও নিতে পারে। কোনও আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসার ৫ দিন পর আপনি পরীক্ষা করালেন তখন রিপোর্ট নেগেটিভ এল। কিন্তু এর পরের সপ্তাহে যে আপনার রিপোর্ট পজিটিভ আসবে না এমন কোনও ভরসা নেই। কারণ অ্যান্টিজেন টেস্টে পজিটিভ এলে তবেই আরটি-পিসিআর করানোর কথা বলা হয়। প্রথম পাঁচ দিনের মাথায় পরীক্ষা করালে আরটি-পিসিআরেও রিপোর্ট নেগেটিভ আসতে পারে।

মাস্ক পরতে হবে: 

মাস্ক সবসময় পরে থাকুন এবং সেই সঙ্গে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়িতেও মাস্ক খুলবেন না।

রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও বাড়ির অন্য সদস্যদের সঙ্গে এক বিছানার শোওয়া, খাওয়া এগুলি বন্ধ রাখুন। অন্তত ১৪ দিন এই নিয়ম মেনে চলুন। আইসোলেশনে থাকলে সেই ঘরে যাতে অন্য কেউ প্রবেশ না করেন সেদিকে খেয়াল রাখুন। মাস্ক না পরা আর সামাজিক দূরত্ব মেনে না চলাই সবচেয়ে বড় বিপদ ডেকে আনে।

রিপোর্ট নেগেটিভ হলেও ৭ দিন বিশ্রাম করুন: 

রিপোর্ট হাতে পেয়েই কাজে যোগ দেবেন এমন নয়। প্রথম ৭দিন সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকুন। কারণ কোভিড হলে শরীর ভেতর থেকে একদম দুর্বল হয়ে পড়ে। একদিন একটু আলাদা বাথরুম ব্যবহারের চেষ্টা করুন। ডিসপোজেবল প্লেটে খাবার খান।

সবরকম সতর্কতা নিয়ে চলুন। নেগেটিভ রিপোর্টও হালকা ভাবে নেবেন না। কারণ নেগেটিভ হলে আপনার মধ্যে ইমিউনিটি বাড়বে এমন নয়। যে কোনও মুহূর্তে আক্রান্ত হতে পারেন। তাই বাড়িতে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলুন। পুষ্টিকর খাবার খান।

করোনাভাইরাসের রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও ১৪ দিন আলাদা থাকতে হবে।  সামান্য হাঁচি, কাশি থাকলেও বেরোবেন না। মুখে মাস্ক আর হাতে গ্লাভস অবশ্যই রাখুন। সেই সঙ্গে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। কারন কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট মানেই আপনি এখনও নিরাপদ নন।

বিজ্ঞাপন