চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কেমিক্যাল গুদাম উচ্ছেদে বাধা, অভিযান অব্যাহত রাখার ঘোষণা মেয়রের

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশেনের মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, জিরো টলারেন্স নিয়ে জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুরান ঢাকা থেকে #কেমিক্যাল গুদাম উচ্ছেদে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, উচ্ছেদ অভিযানের সময় বিএনপির একজন নেতার উস্কানিতে বকশী বাজারে বাধার মুখে পড়ে সরকার গঠিত টাস্কফোর্স। তবে এখন তাদের ভুল বোঝাবুঝি নিরসন হয়েছে।

মেয়র সাঈদ খোকনের নেতৃত্বে শনিবার (২ মার্চ) দুপুর আড়াইটার দিকে বকশী বাজারের জয়নাগ রোডে কেমিক্যাল গুদাম উচ্ছেদ অভিযান পুনরায় শুরু হয়েছে।

এর আগে গুদাম ও বাড়ির মালিকদের বাধার কারণে অভিযান স্থগিত করা হয়। পরে মেয়র এ খবর শুনে নিজেই অভিযান পরিচালনার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘আমি যাব, কে বাধা দেবে আমি দেখব।’

টাস্কফোর্সের অভিযানে বাধার বিষয়ে নগরভবনে সংবাদ সম্মেলন করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ‘কেমিক্যাল গুদাম উচ্ছেদ অভিযানে ব্যবসায়ীরা আমাদের সহযোগিতা করেনি।’

‘‘আমরা গুদাম সরানোর জন্য সময় দিয়েছি। তাদের সঙ্গে কথাবার্তাও বলেছি। কিন্তু ব্যবসায়ীরা কথা শোনেননি।’’

বিজ্ঞাপন

পুরান ঢাকায় কেমিক্যাল গুদাম উচ্ছেদ অভিযান বিষয়ে সাঈদ খোকন বলেন, জিরো টলারেন্স নিয়ে জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এই অভিযান অব্যাহত রাখবে নগর কর্তৃপক্ষ।

পূর্বঘোষিত সময় অনুযায়ী ঢাকা সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে একটি দল বকশীবাজারে অভিযানে যায়। অভিযান পরিচালনাকারী টিম এ সময় বেশকয়েকটি রাসায়নিকের গুদাম চিহ্নিত করে ভবনগুলোয় গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার উদ্যোগ নেয়। কিন্তু এতে বাধা দেয় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের বাধার মুখে অভিযান না চালিয়ে চলে আসেন টাস্কফোর্সের সদস্যরা।

এরআগে চকবাজারের চুড়িহাট্টার অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক প্রাণহানীর পর ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে চকবাজার থেকে সকল ধরনের কেমিক্যাল গোডাইন অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার জন্য মাইকিং করেছিলো ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

২৮ ফেব্রুয়ারির পর চকবাজার এলাকায় আর কাউকে কেমিক্যাল ব্যবসা করতে দেয়া হবে না- এমন ধরণের প্রচার প্রচারণা চালানো হয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে।

Bellow Post-Green View