চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কৃষ্ণাঙ্গ হলে দশ গুন বেশি খাটতে হয়: পিনকক

জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে আমেরিকার পথে নেমে এসেছেন হাজারো মানুষ। সমর্থন জানিয়েছেন অনেক তারকাও। বর্ণবাদ প্রসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করেছেন কেউ কেউ। তাদেরই একজন লিটল মিক্স ব্যান্ডের লেই-অ্যানি পিনকক।

লিটল মিক্স ব্যান্ডের একমাত্র কৃষ্ণাঙ্গ সদস্য পিনকক। কঠিন সংগ্রাম করে খ্যাতি পেতে হয়েছে তাকে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা এক ভিডিওতে সেই অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

ভিডিওতে পিনকক বলেছেন, ‘কৃষ্ণাঙ্গ হলে দশ গুন বেশি খাটতে হয়। অথচ কেউ কখনও আমাকে বলে দেয়নি যে শুধুমাত্র গায়ের রঙ এর কারণে আমাকে বেশি পরিশ্রম করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

তিনি আবেগ জড়ানো কণ্ঠে আরও বলেছেন, ‘অনেক সময়ে সাদাদের দেশে মঞ্চে দাঁড়িয়ে গান করার সময় উপস্থিত দর্শকরা এমন ভাব করেছেন, যেন তারা আমাকে দেখতে পাচ্ছেন না, শুনতে পাচ্ছেন না।’

পাঁচ মিনিটের সেই ক্লিপে তিনি জর্জ ফ্লয়েডের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। এছাড়াও বলেছেন, শুধুমাত্র গায়ের রঙ এর কারণে মেধা থাকা সত্ত্বেও অনেকে সফলতা পাচ্ছেন না।

পিনকক বলেছেন, বর্ণবাদের ব্যাপারে পুরো বিশ্ব গর্জে উঠেছে। তাই তিনিও মুখ খোলার সাহস পেয়েছেন। এতে যদি তার কিছু ভক্ত হারাতে হয়, তাহলেও সমস্যা নেই। কারণ বর্ণবাদ চুপ করে থাকার মতো বিষয় না। তিনি আশার আলো দেখছেন।

৪৬ বছর বয়স্ক জর্জ ফ্লয়েডকে ২৫ মে সন্ধ্যায় প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারের কিছুক্ষণ পর একজন পুলিশ অফিসার হাঁটু দিয়ে তাঁর গলা চেপে ধরলে কিছুক্ষণের মধ্যে তিনি মারা যান। ফ্লয়েড মিনোপোলিস শহরের একটি রেস্তোরাঁয় নিরাপত্তাকর্মী হিসাবে কাজ করতেন। এ ঘটনায় একজন প্রত্যক্ষদর্শীর ধারণ করা ১০ মিনিটের একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে করোনা উপেক্ষা করে প্রতিবাদে সরব হন শত শত মানুষ।