চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কৃষক কাজ করতে না পারলে খাবার ফুরিয়ে যাবে: ইদ্রিস এলবা

হলিউড তারকা ইদ্রিস এলবা কিছুদিন আগেই করোনাভাইরাস সংক্রমণের জটিলতা কাটিয়ে সুস্থ হয়েছেন। বেঁচে থাকাটাকে তিনি সৌভাগ্য মনে করছেন। বিবিসিতে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন ভবিষ্যৎ নিয়ে নানা ভাবনা সম্পর্কে।

সাক্ষাৎকারে ইদ্রিস এলবা বলেছেন, ‘এখন খাবার নিয়ে ভাবার সময়। করোনাভাইরাসের প্রকোপের পরে যেন দুর্ভিক্ষ দেখা না দেয়, সেজন্য বিশ্বনেতাদের এগিয়ে আসতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

ইউএন অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ইদ্রিস এলবা কৃষি খাতে উন্নয়নের জন্য একটি তহবিল চালু করেছেন। তিনি নিজে সেখানে ৪০ মিলিয়ন ডলার দিয়েছেন। এই তহবিলের অর্থ দিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কৃষক এবং খাদ্য উৎপাদনের কাজে সম্পৃক্তদের সহায়তা করা হবে।

বিজ্ঞাপন

ইদ্রিস এলবা বলেন, ‘খাবার মানুষের মৌলিক চাহিদা। কৃষক যদি কাজ করতে না পারে, তাহলে খাবার ফুরিয়ে যাবে।’

এই অভিনেতা আশা করছেন বিভিন্ন দেশের সরকারের তরফ থেকে অনুদান পেয়ে ২০০ মিলিয়ন ডলারের একটি তহবিল গঠন করার। তহবিলের অর্থে আফ্রিকা, এশিয়া, ল্যাটিন আমেরিকা এবং মধ্য প্রাচ্যের দুস্থ কৃষকদের সহায়তা করা হবে। কারণ করোনাভাইরাসের কারণে কৃষকরা আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাদের সুচিকিৎসা পাওয়ার সুযোগও কম।

করোনাভাইরাসের উপসর্গ ছিল না ইদ্রিস এলবার শরীরে। কিন্তু তিনি যখন জানতে পারেন এক করোনা–আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এসেছেন তিনি, তখন নিজ উদ্যোগে পরীক্ষা করান। এরপর জানতে পারেন, করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিনি।

খুব বেশি ভুগতে না হলেও ইদ্রিস এলবা মনে করছেন, করোনায় আক্রান্ত হয়ে বেঁচে ফেরাটা তার সৌভাগ্য। আর বেঁচে ফিরেছেন বলেই তিনি মানুষের জন্য কাজ করতে চান।

ইদ্রিস এলবা এইচবিও ধারাবাহিক ‘দ্য অয়্যারে’ মাদক পাচারকারী ‘স্ট্রিঙ্গার বেল’, বিবিসি ধারাবাহিক ‘লুথার’-এ ‘জন লুথার’ এবং জীবননির্ভর চলচ্চিত্র ‘ম্যান্ডেলা: লং ওয়াক টু ফ্রিডম’-এ ‘নেলসন ম্যান্ডেলা’ চরিত্রে অভিনয়ের জন্য পরিচিতি পান।